DYFI নেতা মইদুলের স্ত্রীকে চাকরির নিয়োগপত্র, মমতাকে ধন্যবাদ পরিবারের

মুখ্যমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি মতো সরকারি চাকরি পেলেন নবান্ন অভিযানে মৃত DYFI নেতা মইদুল ইসলামের স্ত্রী। শুক্রবার বিকেলে বাঁকুড়ার কোতুলপুরের বাড়িতে গিয়ে তাঁর হাতে চাকরির নিয়োগপত্র তুলে দেন রাজ্যের পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন দফতরের মন্ত্রী শ্যামল সাঁতরা। মইদুলের স্ত্রী আলিয়া বেগমকে কোতুলপুর থানায় হোমগার্ড পদে চাকরি দেওয়া হয়েছে।

মন্ত্রী শ্যামল সাঁতরার সঙ্গে ছিলেন জেলাশাসক কে রাধিকা আইয়ার, পুলিশ সুপার কোটেশ্বর রাও সহ অন্যান্য আধিকারিকরা। শ্যামল সাঁতরা জানান, মুখ্যমন্ত্রী প্রতিশ্রুতি দিয়ে পালন করেছেন। দ্রুত নিয়োগপত্র দিতে পেরে আমরা খুশি। অন্যদিকে মইদুলের পরিবার ও গ্রামবাসীরা মুখ্যমন্ত্রীর এই তৎপতায় খুশি। চাকরি করার পাশাপাশি সন্তান পালন করার কথা জানিয়েছেন আলিয়া বেগম, আলাদা করে ধন্যবাদ জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জিকে।

[আরও পড়ুন- রান্নাঘরে অগ্নিকাণ্ড! আকাশছোঁয়া গ্যাসের দামের প্রতিবাদে আন্দোলনে মহিলা তৃণমূল]

১১ ফেব্রুয়ারি বাম ছাত্র যুব সংগঠনের ডাকা নবান্ন অভিযানে গিয়ে গুরুতর আহত হন ডিওয়াইএফআই-এর ইউনিট সেক্রেটারি মইদুল ইসলাম মিদ্যা। চারদিন চিকিৎসা চলার পর ১৫ তারিখ সকালে মারা যান মইদুল। বামদের তরফে অভিযোগ করে বলা হয়, পুলিশের লাঠির আঘাতে ৩১ বছরের যুবকের মৃত্যু হয়েছে। বাম পরিষদীয় দলনেতা সুজন চক্রবর্তীকে ফোন করেন মমতা ব্যানার্জি। মইদুলের মৃত্যুতে দুঃখপ্রকাশ করে পরিবারের পাশে দাঁড়ানোর আশ্বাস দেন মমতা। প্রয়োজনে পরিবারের একজনকে চাকরির প্রতিশ্রুতি দেন তিনি।

পরিবারে একমাত্র রোজগেরে ছিলেন মইদুল। মঙ্গলবার নিজের গ্রামেই শেষকৃত্য সম্পন্ন হয় মইদুলের। ওইদিনই মইদুলের পরিবারে সঙ্গে দেখা করতে যান মন্ত্রী শ্যামল সাঁতরা। মইদুলের স্ত্রী, মা ও সন্তানদের সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন বাম মনোভাবাপন্ন অভিনেতা বাদশা মৈত্র।

 

Comments
Loading...