রোগীদের মুখের দিকে তাকিয়ে দ্রুত কাজে ফিরুন, ফেসবুকে আবেদন মুখ্যমন্ত্রীর, কাজে ফেরার আবেদন রাজ্যপালেরও

অভিযোগের প্রেক্ষিতে যথাযত ব্যবস্থা নেবে প্রশাসন। কিন্তু কাজ বন্ধ করে আন্দোলন নয়। অপেক্ষারত রোগীদের মুখের দিকে তাকিয়ে দ্রুত সবাই কাজে ফিরুন। বৃহস্পতিবার ফেসবুকে আবেদন জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ডাক্তারদের কাজে ফেরার বার্তা দিয়েছেন রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠীও। পাশাপাশি ফেসবুক বার্তায় আন্দোলনরতদের রাজনৈতিক প্ররোচনা এড়িয়ে চলারও পরামর্শ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

বৃহস্পতিবার এসএসকেএম হাসপাতালে গিয়ে আন্দোলনরত জুনিয়র ডাক্তারদের মধ্যে অনেকেই ‘বহিরাগত’ বলে দাবি করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর অভিযোগ ছিল, বিজেপি ও সিপিএমের প্ররোচনায় বিভিন্ন সরকারি হাসপাতালে এই অচলাবস্থা চলছে। মুখ্যমন্ত্রী চিকিৎসকদের আন্দোলনে রাজনীতির রঙ লাগাতে চাইছেন বলে পাল্টা অভিযোগ করেছিলেন আন্দোলনরত জুনিয়র ডাক্তাররা। বৃহস্পতিবার নিজের ফেসবুক ওয়ালে সেই ‘আউট সাইডার’ তত্ত্ব ফের তুলে ধরলেন মমতা। বৃহস্পতিবার বিকেল ৪ টা নাগাদ একটি ফেসবুক পোস্টে মুখ্যমন্ত্রী লেখেন, যখন তিনি এসএসকেএম হাসপাতালে যান, সেসময় বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের বহিরাগতরা তাঁকে উদ্দেশ্য করে স্লোগান দিচ্ছিলেন। মমতার অভিযোগ, হাসপাতালের জরুরি বিভাগ বন্ধ রেখে সাইলেন্স জ়োনে তারস্বরে স্লোগান দিতে থাকেন কয়েকজন ‘বহিরাগত’। এনআরএসে জুনিয়র ডাক্তারদের হেনস্থাকারীদের মধ্যে ৫ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে, তাদের জামিনের আবেদনও খারিজ হয়েছে বলে ফেসবুক পোস্টে উল্লেখ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। সেই সঙ্গে যে রোগী মৃত্যুকে কেন্দ্র করে এই ঘটনা, তারও পূর্ণ তদন্ত হবে বলে ফেসবুকে লিখেছেন মমতা। তিনি জানান, আহত ডাক্তারদের চিকিৎসার সমস্ত ভার নিয়েছে রাজ্য, প্রয়োজনীয় সবরকম পদক্ষেপ করছে প্রশাসন। তা সত্ত্বেও বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলি আন্দোলনকারীদের প্ররোচনা যোগাচ্ছে, বলে অভিযোগ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। পাশাপাশি পরিষেবা চালু রাখার জন্য সিনিয়র ডাক্তারদের ধন্যবাদও জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। হাসপাতালগুলির স্বাভাবিক পরিস্থিতি ফিরিয়ে আনতে চিকিৎসক সমাজের কাছে কাজে ফেরার আহ্বান জানান মুখ্যমন্ত্রী।

Comments
Loading...