মমতা: বিতর্কিত নাগরিকত্ব বিল নিয়ে দেশে হোক গণভোট, হারলে ইস্তফা দিন মোদী-শাহ

নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন নিয়ে এবার মোদী-অমিত শাহের দিকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিলেন মমতা ব্যানার্জি। রানি রাসমনি রোডের সভা থেকে বললেন, সিএএ নিয়ে সারাদেশে গণভোট হোক। দেশের প্রতিটি মানুষ ভোট দিয়ে বলুন তাঁরা এই ভেদাভেদ চান কি না। ভোট পরিচালনার দায়িত্বে থাকুক রাষ্ট্রপুঞ্জ ও মানবাধিকার সংগঠনের মতো নিরপেক্ষ কোনও সংস্থা। আর সেই গণভোটে হারলে ইস্তফা দিন মোদী-অমিত শাহ। পাশাপাশি তিনি নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরুদ্ধে সারাদেশের মানুষকে দল-মত-ধর্ম নির্বিশেষে আন্দোলনে নামতে বললেন।

পরপর ৩ দিন কলকাতা ও হাওড়ায় লাগাতার পদযাত্রার পর বৃহস্পতিবার রানি রাসমনি রোডে ছিল তৃণমূলের প্রকাশ্য জনসভা। মূল বক্তা দলনেত্রী। মমতা মাইক ধরেই তুমুল আক্রমণ শানান বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে। সাফ জানিয়ে দেন, কারও দয়ায় তিনি ভারতে বাস করেন না। পাশাপাশি উপস্থিত জনতার উদ্দেশে ফের একবার পথে নেমে বিতর্কিত নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের বিরোধিতা করার আহ্বান জানান। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, কখনও কখনও রাস্তায় নামতে হয়। ভুলে যান রাজনীতি, জাত, ধর্ম, বর্ণ। সবাই একত্রিত হয়ে পথে নামুন। বসে থাকবেন না।

এদিন মমতা বিজেপির গেমপ্ল্যান নিয়েও উপস্থিত জনতাকে সতর্ক করে দেন। তাঁর দাবি, বিজেপি হাজার হাজার কোটি টাকা ছড়িয়ে ফেক ভিডিও তৈরি করে সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা তৈরি করছে। এজন্য বাজার থেকে বেশ কিছু টুপি বিজেপির নেতারা কিনছেন। ফেক ভিডিও থেকে সাবধান থাকার পাশাপাশি ভোটার লিস্টে ভুয়ো নাম ঢোকানোর ছকও বিজেপি করছে বলে অভিযোগ মমতার। দলকে এবিষয়ে সতর্ক থাকারও নির্দেশ দেন তৃণমূল নেত্রী।

বিজেপি কেবলমাত্র সংখ্যাগরিষ্ঠতার জেরে একের পর এক অসাংবিধানিক কাজ করে যাচ্ছে বলেও এদিন অভিযোগ করেন মমতা ব্যানার্জি। মোদী-অমিত শাহের দিকে তীব্র আক্রমণ শানিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগ, দেশের সমস্ত বিজেপিশাসিত রাজ্যে ১৪৪ ধারা জারি করে মানুষকে ভয় পাওয়ানোর চেষ্টা চলছে। কিন্তু মানুষকে ১৪৪ ধারা করে কিংবা এজেন্সি লেলিয়ে দিয়ে আর ভয় পাইয়ে আন্দোলন দমিয়ে রাখা যাবে না, বলেন মমতা। তাঁর কথায়, সব চলে যায় যাবে, কিন্তু মানুষ অস্তিত্ব বিসর্জন দেবে না। মোদী-অমিত শাহের প্রতি মুখ্যমন্ত্রীর বার্তা, চোখ খুলে দেখুন, মানুষ জাগছে।

Comments
Loading...