মেট্রো রেলের ই-পাস দেখানো থেকে মুক্তি পেলেন শহরের প্রবীণ নাগরিকরা। ১৪ তারিখ কলকাতায় মেট্রো রেল পরিষেবা শুরু হলেও ই-পাস সংক্রান্ত জটিলতার কারণে যাত্রী সংখ্যা আশানুরূপ হয়নি। অন্যদিকে প্রবীণ নাগরিকরা ই-পাস জোগাড় করতে গিয়ে অসুবিধার মুখে পড়ছেন দেখে মঙ্গলবার তড়িঘড়ি আগের সিদ্ধান্ত বদল করে মেট্রো কর্তৃপক্ষ।

সিদ্ধান্ত হয়েছে, ৬০ বছরের উপর যাঁদের বয়স, তাঁরা স্টেশনে ঢোকার আগে পরিচয়পত্র দেখালেই মেট্রো যাত্রার সুযোগ পাবেন। নন পিক আওয়ার্স বা সকাল সাড়ে ১১টা থেকে বিকেল সাড়ে ৪ টে পর্যন্ত এই ছাড় মিলবে বলে জানিয়েছে কলকাতা মেট্রো কর্তৃপক্ষ। মেট্রো রেলের তরফে জানানো হয়েছে, প্রবীণ নাগরিকরা ভোটার কার্ড, প্যান কার্ড, আধার কার্ড, পাসপোর্ট, ড্রাইভিং লাইসেন্স সহ যে কোনও একটি সরকারি পরিচয়পত্র দেখাতে পারেন কর্তব্যরত আরপিএফ জওয়ানদের। তারপর সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির জন্ম তারিখ দেখে বয়স যাচাই করে স্টেশনে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হবে।

এ প্রসঙ্গে মেট্রো রেলের এক কর্তা জানান, সোমবার মেট্রোর শুরুটা ভালো হয়নি। ডিজিটাল বুকিং যত হয়েছিল, বাস্তবে তত যাত্রী মেট্রোয় চাপেননি। ই-পাস নিয়েও উঠেছে নানা প্রশ্ন। তাই ব্যস্ত সময় বাদ দিয়ে প্রবীণদের জন্য ই-পাস ব্যবস্থা প্রত্যাহার করা হল। এর ফলে বেলা সাড়ে ১১ টা থেকে বিকেল সাড়ে ৪ টের মধ্যে কিছু অতিরিক্ত যাত্রী মেট্রোয় উঠবেন বলে আশা করছে কর্তৃপক্ষ। কারণ, ডিজিটাল মাধ্যমে অনভ্যস্ত প্রবীণরা মেট্রোয় উঠতে ইতস্তত করছেন বলে মনে করা হচ্ছে। ওই কর্তার আরও দাবি, মঙ্গলবার অফিস টাইমে যাত্রী সংখ্যা সোমবারের তুলনায় কিছুটা বৃদ্ধি পেয়েছে। মেট্রোর হিসেবে, সকাল ৯ টা থেকে সাড়ে ১১ টা এবং বিকেল সাড়ে ৪ টে থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত অফিস টাইম ধরা হয়। এই সময়ে ১০ মিনিট অন্তর মেট্রো চালানো হচ্ছে। এর মধ্যে প্রায় ৫ ঘণ্টা সময় প্রবীণদের জন্য মেট্রো শর্তহীন দরজা খোলার সিদ্ধান্ত নিল। এই সময়ে ১৫ মিনিট অন্তর ট্রেন চলাচল করছে।

এখন সারা দিনে ১১০টি মেট্রো চলছে। মেট্রো কর্তৃপক্ষ জানাচ্ছে, ই-পাস না লাগলেও স্মার্ট কার্ডের মাধ্যমে বয়স্করা মেট্রো পরিষেবা পাবেন। তবে যাঁদের স্মার্ট কার্ড নেই, তাঁরা কাউন্টার থেকে তা ইস্যু করে নিতে পারেন।

মঙ্গলবার যাত্রী সংখ্যা বাড়লেও আয় কমেছে মেট্রোর। ২৭ হাজার ১০০ জন কলকাতা মেট্রোয় সফর করেছেন বলে জানা গিয়েছে। মেট্রোর আয় হয়েছে ১০ লক্ষ ৬ হাজার টাকা। আর সোমবার এই যাত্রী সংখ্যা ছিল প্রায় কুড়ি হাজার।

এখন দেখার, ই-পাসের ঝঞ্ঝাট শেষ হওয়ার পর কত সংখ্যক প্রবীণ নাগরিক মেট্রো যাত্রার সু্যোগ নেন।

ধারাবাহিকভাবে পাশে থাকার জন্য The Bengal Story র পাঠকদের ধন্যবাদ। আমরা যে ধরনের খবর করি, তা আরও ভালোভাবে করতে আপনাদের সাহায্য আমাদের উৎসাহিত করবে।

Login Support us

You may also like

CPM Leader Plasma Donation