মমতা: খুশি হব যদি রাজ্যের ১০ কোটি মানুষই স্বাস্থ্য সাথীর আওতায় আসেন

দুয়ারে সরকার ক্যাম্পে ইতিমধ্যেই ১ কোটি ৩০ লক্ষেরও বেশি মানুষকে পরিষেবা দেওয়া হয়েছে

রাজ্যের প্রতিটি মানুষকে স্বাস্থ্য সাথীর আওতায় আনাই সরকারের লক্ষ্য। যেদিন রাজ্যের সব মানুষ স্বাস্থ্য সাথী কার্ড করাবেন, সেদিন খুশি হব। নবান্ন থেকে বললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। 

পাশাপাশি এদিন নবান্ন থেকে ‘চোখের আলো’ প্রকল্পের সূচনা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। এই প্রকল্পের অধীনে রাজ্যের সমস্ত ব্লকে ৫০ হাজারের বেশি চশমা বিনামূল্যে বিতরণ করা হবে। ‘চোখের আলো’ প্রকল্পের সূচনার পাশাপাশি এদিন ‘দুয়ারে সরকার’ ও ‘পাড়ায় সমাধান’ প্রকল্প দুটির সাফল্যের খতিয়ানও প্রকাশ করেন মমতা। রাজ্য সরকারের স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পের খতিয়ান দিতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণা রাজ্য জুড়ে ১০ কোটি মানুষই এই প্রকল্পের আওতায় এলে তিনি খুশি হবেন। মমতা দাবি করেন ইতিমধ্যেই ৭৫% মানুষকে স্বাস্থ্য সাথীর আওতায় আনা হয়েছে।

সরকারের এই তিনটি প্রকল্পের পাশাপাশি এদিন সবুজ সাথী, কন্যাশ্রী, যুবশ্রীর মত একাধিক জনকল্যাণমূলক কর্মসূচির সাফল্যের কথাও ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী। রাজ্যের আদিবাসী সম্প্রদায়কে প্রতি মাসে হাজার টাকা করে বার্ধক্য ভাতা দেওয়ার ঘোষণা করেন। 

রাজ্য সরকারের দুয়ারে সরকার কর্মসূচি ইতিমধ্যেই সাড়া ফেলেছে। নবান্নের দাবি, দুয়ারে সরকার ক্যাম্পে ইতিমধ্যেই ২ কোটি ৫৫ লক্ষেরও বেশি মানুষকে পরিষেবা দেওয়া হয়েছে। তার মধ্যে শুধু স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পেই ৭৬ লক্ষ মানুষ নাম নথিভুক্ত করিয়েছেন। 

এদিন সাংবাদিক বৈঠকে মমতা রাজ্যের স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পের সঙ্গে কেন্দ্রের আয়ুষ্মান ভারতের তুলনা করে মোদী সরকারকে কটাক্ষ করেন।

Comments
Loading...