বিল গেটসের হাত থেকে পুরস্কার নিলেন মোদী, ধোপে টিকল না সঙ্ঘের শাখার আপত্তি

ধোপে টিকল না স্বদেশী জাগরণ মঞ্চের আবেদন। আরএসএসের শাখা সংগঠনের আপত্তি উড়িয়ে ‘স্বচ্ছ ভারত অভিযানের’ জন্য বিল গেটসের সংস্থার পুরস্কার গ্রহণ করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। মঙ্গলবার নিউইয়র্কে বিল ও মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশনের (বিএমজিএফ) পক্ষে প্রধানমন্ত্রীর হাতে তুলে দেওয়া হল গ্লোবাল গোলকিপার পুরস্কার। বিল গেটসের সংস্থার দেওয়া এই পুরস্কার মোদীর আদৌ গ্রহণ করা উচিত হবে কিনা, তা নিয়ে পুনর্বিবেচনার আবেদন করেছিল আরএসএসের শাখা সংগঠন।
মাইক্রোসফটের প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটসের হাত থেকে এই পুরস্কার নেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এই পুরস্কার দেশের মানুষকে উৎসর্গ করেন প্রধানমন্ত্রী। বলেন, শেষ ৫ বছরে দেশজুড়ে ১১ কোটি শৌচাগার তৈরি হয়েছে। এই প্রকল্পে সবচেয়ে বেশি যদি কেউ উপকৃত হয়ে থাকেন, তাঁর হলেন দেশের গরিব মানুষ ও মহিলারা। নিজের ট্যুইটার হ্যান্ডেল থেকে মোদী লেখেন, ১৩০ কোটি ভারতীয় যখন কোনও মিশনের জন্য অঙ্গীকারবদ্ধ হয়, তখন যে কোনও চ্যালেঞ্জ জেতা যায়। পাশাপাশি, মহাত্মা গান্ধীর ১৫০ তম জন্মবার্ষিকীতে এই স্বীকৃতি বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ বলেও মন্তব্য করেন নরেন্দ্র মোদী।
২০১৪ সালে প্রথমবার প্রধানমন্ত্রী হয়ে স্বচ্ছ ভারত অভিযান প্রকল্পের সূচনা করেন নরেন্দ্র মোদী। ২০১৪ সালের ২ রা অক্টোবর দিল্লির রাজঘাটে এই জনকল্যাণমূলক প্রকল্পের সূচনা করেন তিনি।
যদিও কয়েক সপ্তাহ আগে বিএমজিএফের এই পুরস্কারের জন্য প্রধানমন্ত্রীকে মনোনীত করার পর বেসুরো গেয়েছিল আরএসএস স্বীকৃত সংস্থা। স্বদেশী জাগরণ মঞ্চের যুগ্ম আহ্বায়ক অশ্বিনী মহাজন বলেছিলেন, বিএমজিএফের কুখ্যাত অতীতের কথা বিবেচনা করে প্রধানমন্ত্রী যেন এই পুরস্কার গ্রহণের সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করেন। তাঁদের অভিযোগ, বিএমজিএফ মোটেও মানব কল্যাণের কাজে রত নয়। ভারতের বিশাল বাজারকে আরও ভালোভাবে কবজা করতেই মার্কিন মুলুকে প্রধানমন্ত্রীকে এই পুরস্কার দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করে আরএসএসের স্বদেশী জাগরণ মঞ্চ।
সামাজিক উন্নয়নে উল্লেখযোগ্য অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ গ্লোবাল গোলকিপার অ্যাওয়ার্ড প্রদান করে বিল গেটসের এই সংস্থা। এবার সেই পুরস্কার পেলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। যে পুরস্কার গ্রহণের তীব্র বিরোধিতা এসেছিল আরএসএসের শাখা সংগঠনের তরফে।

Comments
Loading...