নয়া অস্বস্তিতে প্রণয় রায়, সেবির পর এবার আয়কর দফতরের যুক্তিকে মান্যতা অ্যাপিলেট ট্রাইবুনালের

এনডিটিভির শীর্ষ পদ ছাড়তে হবে বলে প্রণয় রায় ও রাধিকা রায়কে নির্দেশ দিয়েছিল সেবি। যদিও তাঁদের সাময়িক স্বস্তি দিয়ে স্যাট সেবির নির্দেশে স্থগিতাদেশ দেয়। কিন্তু বিপত্তি পিছু ছাড়েনি এনডিটিভির অন্যতম দুই কর্ণধার প্রণয় রায় এবং তাঁর স্ত্রী রাধিকা রায়ের। এবার তাঁদের বিরুদ্ধে আয়কর দফতরের যুক্তিকেই মান্যতা দিল দ্য ইনকাম ট্যাক্স অ্যাপিলেট ট্রাইবুনাল (আইটিএটি)। গত ১৪ ই জুন আয়কর দফতর জানিয়েছিল, দুটি অর্থবর্ষে এনডিটিভির প্রতিষ্ঠাতা প্রণয় রায় ও রাধিকা রায় ১১৭ কোটি টাকা করে আয় লুকিয়ে গিয়েছেন। আইটিএটির মান্যতার পর এবার আয়কর দফতরের এই দু’জনের বিরুদ্ধে আইনের পথে যেতে আর কোনও বাধা থাকল না। আয়কর দফতরের মতে, ২০০৯ সালের অগাস্টে রায় দম্পতি ৪ টাকা দরে এনডিটিভির প্রতিটি শেয়ার কিনেছিলেন। কিন্তু সেই সময় শেয়ার বাজারে এনডিটিভির শেয়ারের দাম ছিল ১৪০ টাকা।
আয় লুকোনোর কোনও প্রশ্নই নেই। ইংরেজি দৈনিক ইকনমিক টাইমসের করা ই-মেলের জবাবে এমনই জানিয়েছেন প্রণয় রায়। জুলাইয়ে আদালত খুললেই ট্রাইবুনালের রায়ের বিরুদ্ধে আদালতের দ্বারস্থ হবেন বলেও ইকনমিক টাইমসকে ই-মেলে জানিয়েছেন প্রণয় রায়।

Comments
Loading...