যাদবপুর কাণ্ড নিয়ে বিস্ফোরক ট্যুইট তথাগত রায়ের! বামপন্থীদের আক্রমণ, ছাত্র-ছাত্রীদের মাওবাদী বলে নিশানা

বামপন্থী ‘জাতীয়তা বিরোধীরা’ ‘ধোয়া তুলসীপাতা’ নয়, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় কাণ্ডে সিপিএম নেতা ও বিধায়ক সুজন চক্রবর্তীকে কটাক্ষ মেঘালয়ের রাজ্যপাল তথাগত রায়ের। প্রাক্তন বিজেপি নেতার অভিযোগ, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেতর কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়কে বিশ্ববিদ্যালয়ে হেনস্থা করেছে মাওবাদীরা। এর আগেও সুজন চক্রবর্তীকে আক্রমণ করেছিলেন তথাগত রায়।

যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় কাণ্ড নিয়ে তুঙ্গে উঠেছে রাজ্যপাল জগদীপ ধানকর ও রাজ্যের শাসক দলের সংঘাত। এই প্রেক্ষিতে বিতর্ক উস্কে দিলেন আর এক রাজ্যের রাজ্যপাল তথাগত রায়। বৃহস্পতিবার বাবুল সুপ্রিয়কে হেনস্থার জন্য তিনি যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘মাওবাদী’ পড়ুয়াদের দিকে আঙুল তুলেছেন। ট্যুইটারে বাম পরিষদীয় নেতা সুজন চক্রবর্তীর ট্যুইটকে নিশানা করে বামপন্থীদের কড়া সমালোচনা করেন মেঘালয়ের রাজ্যপাল।
শুক্রবার সোশ্যাল মিডিয়ায় যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় কাণ্ডের একটি ভিডিও ফুটেজ পোস্ট করে বিজেপি সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়র কড়া নিন্দা করেন সুজন চক্রবর্তী। সেই ট্যুইটটিকে রিট্যুইট করে সুজন চক্রবর্তী ও বামপন্থীদের আক্রমণ করেন তথাগত রায়। সুজন চক্রবর্তীর উদ্দেশে তিনি লেখেন, অর্ধ সত্য মুছে ফেলার চেষ্টা করছেন তিনি। সুজন চক্রবর্তী ‘জাতীয়তা বিরোধীদের’ ‘ধোয়া তুলসিপাতা’ প্রমাণের চেষ্টা করছেন বলে তোপ দাগেন মেঘালয়ের রাজ্যপাল। তথাগত রায় লেখেন, পুরো ঘটনাই তিনি দেখেছেন। এখনকার দিনে কোনও কিছুই লুকোনো যায় না বলে সুজন চক্রবর্তীকে আক্রমণ করেন তিনি।

যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে বাবুল সুপ্রিয়র হেনস্থা প্রসঙ্গে বৃহস্পতিবার বেশ কয়েকটি ট্যুইট করেন তথাগত রায়। তাঁর প্রথম ট্যুইটে তথাগত রায় লেখেন, দীর্ঘ ২০ বছর যে বিশ্ববিদ্যালয়ে তিনি শিক্ষাদান করেছেন, সেখানে একজন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে যেভাবে হেনস্থা করা হয়েছে তাতে তিনি লজ্জিত। পুরো ঘটনায় কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়র পাশে দাঁড়িয়ে তথাগত রায় লেখেন, কোনও প্ররোচনা ছাড়া মাওবাদীদের দ্বারা আক্রান্ত হয়েছেন বাবুল সুপ্রিয়। ফ্যাসিবাদ আর অতি বামপন্থার মধ্যে কোনও পার্থক্য নেই বলে কটাক্ষ মেঘালয়ের রাজ্যপালের। আর একটি ট্যুইটে তিনি লেখেন, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের কিছু ‘জাতীয়তা বিরোধী মাওবাদীদের’ দ্বারা শারীরিকভাবে হেনস্থা হয়েছেন অগ্নিমিত্রা পাল। যাদবপুরের কর্মকাণ্ডের সঙ্গে তিনি হিটলারি শাসনের তুলনা টানেন। পাশাপাশি, কিছু সংবাদমাধ্যম পক্ষপাতদুষ্ট সংবাদ পরিবেশন করছে বলে অভিযোগ করেন তথাগত রায়।
এর আগে, হিন্দি ভাষায় শিক্ষার প্রয়োজনীয়তা নিয়ে বাঙালি মহিলাদের সম্পর্কে তাঁর আপত্তিকর মন্তব্য থেকে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে অমর্ত্য সেনের এক বক্তব্যের প্রেক্ষিতে কটাক্ষ সহ একাধিকবার বিতর্কিত মন্তব্য করেছেন তথাগত রায়। বিভিন্ন সময়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁর রাজনৈতিক পোস্ট ঘিরে প্রশ্ন উঠেছে, কীভাবে সাংবিধানিক পদে বসে কোনও নির্দিষ্ট দলের সমর্থন বা বিরোধিতা করেন তিনি। তথাগত রায় অবশ্য থামেননি। এবার তাঁর আক্রমণ সুজন চক্রবর্তী সহ বামপন্থীদের।

Comments
Loading...