মেট্রো এবং লোকাল ট্রেন বন্ধ থাকা সত্ত্বেও স্বাভাবিকের পথে যানবাহন, মানুষের সহযোগিতা চাইলেন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী

লকডাউন বজায় রেখেও আস্তে-আস্তে স্বাভাবিক হওয়ার পথে রাজ্য। প্রথম দু’সপ্তাহে একাধিক পদক্ষেপ নিয়ে অফিসযাত্রীদের সুবিধার্থে আগামী সোমবার থেকে আরও কিছু উদ্যোগ নিতে চলেছে রাজ্য পরিবহণ দফতর। আরও কিছু বেসরকারি লাক্সারি বাস শহরে নামানো হচ্ছে। পাশাপাশি, রবিবার থেকে শহরে চালু হচ্ছে ট্রাম পরিষেবাও। রাজ্য পরিবহণ দফতরের কর্তাদের বক্তব্য, আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে শহর ও শহরতলিতে যানবাহন ব্যবস্থা আরও অনেকটাই স্বাভাবিক হবে।
আনলক পর্ব চালু হওয়ার একসঙ্গে বহু মানুষ রাস্তায় বেরিয়ে পড়ায় প্রথমদিকে পরিস্থিতি অনেকটাই জটিল ছিল। মানুষের তুলনায় যানবাহন ছিল অনেকটাই কম। কিন্তু গত এক সপ্তাহে পরিস্থিতি কিছুটা বদলেছে। যদিও এখনই পরিস্থিতি পুরোপুরি স্বাভাবিক হতে কিছুটা সময় লাগবে বলেই মনে করছে রাজ্য প্রশাসন।
পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী বলেন, প্রতিদিন শহরে প্রায় ৭ লক্ষ মানুষ মেট্রো রেলে যাতায়াত করেন। তার সঙ্গে ২০ লক্ষেরও বেশি মানুষ যাতায়াত করেন লোকাল ট্রেনে। এই দুই পরিষেবা সম্পূর্ণ বন্ধ থাকায়, কিছুটা সমস্যা থেকে যাবে। কারণ, মেট্রো রেল এবং লোকাল ট্রেন চালু না হলে এই বিপুল পরিমাণ মানুষকে পরিষেবা দেওয়া সহজ নয়। তবে এখন মানুষকে হয়তো যানবাহনের জন্য মানুষকে রাস্তায় ২০-৩০ মিনিট অপেক্ষা করতে হচ্ছে। আগামী সপ্তাহ থেকে মানুষকে যাতে এতটা সময়ও রাস্তায় গাড়ির জন্য অপেক্ষা করতে না হয়, তার জন্য চেষ্টা করা হচ্ছে।
রাজ্য পরিবহণ দফতর সূত্রে খবর, এই মুহূর্তে প্রায় ১২০০ বাস চালানো হচ্ছে। তার সঙ্গে প্রায় ৩০ টি জলপথে পরিবহণ চালু করা হয়েছে। কলকাতা এবং হাওড়া পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ রেখে প্রতি মুহূর্তে খবর নেওয়া হচ্ছে, কোন এলাকায় কত মানুষ রাস্তায় রয়েছেন। সেই এলাকায় যত দ্রুত সম্ভব বাস পাঠানোর চেষ্টা হচ্ছে। পরিবহণ ব্যবস্থাকে যতটা সম্ভব স্বাভাবিক করতে দফতরের পাশাপাশি উদ্যোগী হয়েছে নবান্নও। বাস্তব সমস্যার কারণে অফিসে লেট মার্ক বন্ধ করতে এবং শিফট অনুযায়ী ডিউটি রোস্টার চালু করতে নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী জানান, মানুষের সমস্যা কিছুটা হয়েছে ঠিকই, অফিসফেরতা কেউ যেন বাড়ি ফিরতে বেশি সমস্যায় না পড়েন তার জন্য আরও একাধিক পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে।

Comments
Loading...