স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করছে কেন্দ্র? আরবিআই গভর্নর পদে উর্জিত প্যাটেলের ইস্থফা দেওয়ার জল্পনা, পড়ল টাকার দাম

সরকারের সঙ্গে মতানৈক্যের জেরে কি মেয়াদ ফুরানোর আগেই নিজের পদ থেকে ইস্তফা দিতে চলেছেন ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাঙ্কের গভর্নর উর্জিত প্যাটেল? বুধবার সকাল থেকেই কয়েকটি সংবাদমাধ্যমে এই খবর সম্প্রচারিত হতেই তার প্রভাব পড়তে শুরু করেছে দেশের অর্থ ব্যবস্থায়। পতন হয়েছে টাকার মূল্যে।
এদিন সকালে ‘ইটি নাউ’ এবং ‘সিএনবিসি টিভি ১৮’ এই মর্মে খবর সম্প্রচার করে যে, সূত্রের খবর, সরকারের সঙ্গে মতানৈক্য ও তিক্ততার জেরে নিজের পদ থেকে ইস্তফা দেওয়ার চিন্তাভাবনা করছেন আরবিআই গভর্নর উর্জিত প্যাটেল। এর পরই বাজারে এর প্রভাব দেখা যায়। প্রভাব পড়ে ভারতীয় বন্ডের মূল্যেও। ডলারের তুলনায় পড়ে টাকার দাম। মঙ্গলবারের তুলনায় (৭৩.৬২ টাকা) প্রতি ডলার পিছু টাকার দাম দাঁড়ায় ৭৩.৯৯ টাকা। যদিও কেন্দ্রীয় অর্থ মন্ত্রক বা আরবিআই-এর তরফে এবিষয়ে কোনও প্রতিক্রিয়া দেওয়া হয়নি।
অন্যদিকে, সংবাদমাধ্যম ‘ইকনমিক টাইমসে’র রিপোর্ট অনুযায়ী, কার্জত নজিরবিহীনভাবে আরবিআই অ্যাক্ট অনুযায়ী নিজেদের ক্ষমতা ব্যবহার করে আরবিআইকে কিছু কিছু জনস্বার্থজনিত বিষয়ে নির্দেশ পাঠিয়েছে কেন্দ্র। রিপোর্ট অনুযায়ী, আরবিআই অ্যাক্টের ৭ নম্বর ধারার আওতায় সম্প্রতি কেন্দ্রের তরফে আরবিআইকে একটি চিঠি পাঠানো হয়, সেখানে নন ব্যাঙ্কিং ফিনান্সিয়াল সংস্থাগুলির লিক্যুইডিটি ক্রাঞ্চ, আর্থিকভাবে দুর্বল ব্যাঙ্কগুলিকে সাহায্যসহ কিছু নির্দেশ দেওয়া হয় কেন্দ্রের তরফে। এই আরবিআই অ্যাক্টের ৭ নম্বর ধারায় বলা হয়েছে, জনস্বার্থে কিছু ক্ষেত্রে পরিস্থিতি বিচার করে আরবিআইকে নির্দেশ দিতে পারে কেন্দ্র। কিন্তু স্বাধীন ভারতে আজ অবধি এর আগে কোনও দিন কোনও সরকার এই ধারার ব্যবহার করেনি।
বিশেষজ্ঞদের মতে, শুধুমাত্র এই কারণে আরবিআই গভর্নর পদত্যাগ করবেন, তা হয়তো ঠিক নয়। কিন্তু তাঁরাও মানছেন, সরকার যেভাবে আরবিআই-এর মতো স্বাধীন প্রতিষ্ঠানের কার্যকলাপে হস্তক্ষেপ করছে তা যথেষ্ট উদ্বেগের।
উল্লেখ্য, গত শুক্রবারই এক অনুষ্ঠানে আরবিআই ডেপুটি গভর্নর ভিরল আচারিয়া কারোর নাম না করে জানিয়েছিলেন, আরবিআই-এর স্বাধীতায় সরকার হস্তক্ষেপ করলে দেশে অর্থনৈতিক অরাজকতা তৈরি হতে পারে। তাঁর এই বক্তব্যে উর্জিত প্যাটেলের সায় ছিল বলেও জানা যায়। সূত্রের খবর, আরবিআই শীর্ষ কর্তার প্রকাশ্যে এই মন্তব্য ভালভাবে নেয়নি প্রধানমন্ত্রীর দফতর। এরপর গতকালই এক বৈঠকে মিলিত হন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি ও আরবিআই গভর্নর উর্জিত প্যাটেল। বৈঠকে অর্থমন্ত্রী আরবিআই-এর ভূমিকার সমালোচনা করেছেন বলে জানা গেছে।

Comments
Loading...