তরুণ পরিচালক আইশার বিরুদ্ধে ‘মিথ্যা’ দেশদ্রোহিতার মামলা, প্রতিবাদে পদত্যাগের হিড়িক লক্ষদ্বীপ বিজেপিতে

মোদীর বিরুদ্ধে মুখ খোলার জেরে লক্ষদ্বীপের সিনেমা পরিচালকের বিরুদ্ধে দেশদ্রোহের মামলা। প্রতিবাদে বিজেপি ছাড়লেন একাধিক নেতা। এদের মধ্যে রয়েছেন লক্ষদ্বীপের বিজেপির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হামিদ মুললিপুঝাও।

কি এমন বলেছিলেন সিনেমা পরিচালক আইশা সুলতানা? যে তাঁর বিরুদ্ধে দেশদ্রোহের মামলা ঠুকে দেওয়া হল।

সম্প্রতি একটি মালায়লম টিভি চ্যানেলে মিডিওয়ান টিভি যে একটি বিতর্ক সভায় যোগ দেন আইশা। সেখানে তিনি দাবি করেন, লক্ষদ্বীপের মানুষের ওপর করোনা ভাইরাসকে জৈব অস্ত্র হিসেবে প্রয়োগ করেছে মোদী সরকার। তিনি অভিযোগ করে বলেছেন, যেই কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে করোনা সংক্রমিতের সংখ্যা জিরো হয়ে গিয়েছিল, সেখানে দৈনিক সংক্রমিতের সংখ্যা ১০০ হয়ে গেল কীভাবে? এরজন্য তিনি দায়ী করেন মোদী সরকারকে। এরপরেই দেশদ্রোহিতার অভিযোগ ছাড়াও হিংসা ও বিদ্বেষ ছড়ানোর অভিযোগ আনা হয় আইশার বিরুদ্ধে।

অন্যদিকে এই দ্বীপে নতুন প্রশাসক হিসেবে প্রফুল্ল প্যাটেল আসার পর থেকেই একের পর এক বিতর্ক তৈরি হয়েছে। প্রফুল্ল প্যাটেলের একধিক সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করছেন বিজেপি কর্মীদের একাংশ।

তাঁর অগণতান্ত্রিক পদক্ষেপের বিরোধিতা করে বলা হয়েছে, যেসময় প্রফুল্ল প্যাটেলের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানানো হচ্ছে, তখনই আইশার বিরুদ্ধে দেশদ্রোহের মামলা আনা হল।

লক্ষদ্বীপের বিজেপি সভাপতি আব্দুল কাদেরকে এই মর্মে একটি চিঠি দিয়েছেন বিজেপি কর্মীদের একাংশ। সেখানে নিজেদের পদত্যাগের পাশাপাশি জানানো হয়েছে, প্রফুল্ল প্যাটেল যা শুরু করেছেন, তা জন বিরোধী, গণতন্ত্র বিরোধী। তাঁর একাধিক সিদ্ধান্তের ফলে সমস্যায় পড়তে হচ্ছে সাধারণ মানুষকে।

এর আগের মাসেও প্রফুল্ল প্যাটেলের বিরুদ্ধে গিয়ে ৮ জন বিজেপি নেতা পদত্যাগ করেছিলেন।

সোশ্যাল মিডিয়ায় আইশার বিরুদ্ধে দেশদ্রোহিতার অভিযোগের বিরোধিতা করেছেন অনেকে।

Comments
Loading...