জেআইএস-এর প্রতিষ্ঠাতা সর্দার যোধ সিংহের জন্ম শতবার্ষিকী উদযাপন, বিশেষ ডাকটিকিট প্রকাশ

প্রায় ৬৭ বছর আগে পঞ্জাবে নিজের ডেয়ারি ও পরিবহণ ব্যবসা ছেড়ে কলকাতায় পা রাখেন সর্দার যোধ সিংহ। কলকাতায় এসে মনোনিবেশ করেন স্টিল, ইনফ্রাস্ট্রাকচার ও টেলিকমের মতো ব্যবসায়। এরপর পশ্চিমবঙ্গে উন্নতমানের শিক্ষা ও কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে ২০০০ সালে কল্যাণীতে তৈরি করেন জেআইএস কলেজ অফ ইঞ্জিনিয়ারিং। কুড়ি বছরের দীর্ঘ যাত্রা পেরিয়ে আজ জেআইএস গ্রুপের অধীনে ২৭ টি কলেজ রয়েছে, যেখানে প্রায় ৩৭,০০০ ছাত্রছাত্রী তাঁদের ভবিষ্যৎ তৈরি করছেন। পড়ানো হচ্ছে ১৪০ টি পাঠ্যক্রম।
২০১৮ সালে প্রায় ৯৮ বছর বয়সে সর্দার যোধ সিংহের মৃত্যুর পর হাল ধরেছেন তাঁর পুত্র তরনজিৎ সিংহ। তিনিই এখন এই সংস্থার ম্যানেজিং ডিরেক্টর। গত ১ ফেব্রুয়ারি ছিল সর্দার যোধ সিংহের শততম জন্মবার্ষিকী। এই উপলক্ষ্যে সোদপুরে জেআইএস গ্রুপের গুরু নানক কলেজ ক্যাম্পাসে আয়োজন করা হয়েছিল সারাদিনব্যাপী এক অনুষ্ঠানের। এদিনটিকে জেআইএসের প্রতিষ্ঠা দিবস হিসেবেও ঘোষণা করা হয়। অনুষ্ঠানে সর্দার যোধ সিংহের প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন রাজ্যের পরিষদীয় প্রতিমন্ত্রী তাপস রায়, বিধায়ক নির্মল মাঝি, নির্মল ঘোষ, মানস মুখোপাধ্যায় সহ একাধিক ব্যক্তি। উপস্থিত ছিলেন মৌলানা আবুল কালাম আজাদ প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ডঃ সৈকত মৈত্র ও পশ্চিমবঙ্গ জয়েন্ট এন্ট্রান্স বোর্ডের চেয়ারম্যান মলয়েন্দু সাহা।
এদিন বাবুজি হিসেবে খ্যাত সর্দার যোধ সিংহের প্রতি সম্মান জানিয়ে একটি বিশেষ ডাকটিকিট প্রকাশ করেন কলকাতা জিপিওর চিফ পোস্টমাস্টার জেনারেল গৌতম ভট্টাচার্য, যোধ সিংহের স্ত্রী, জেআইএস গ্রুপের চেয়ারপার্সন সতনাম কৌর। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন তরনজিৎ সিংহ, অমৃক সিংহ, আকাঙ্খা কৌর ও আরও অনেকে বিশিষ্ট ব্যক্তি। প্রয়াত যোধ সিংহের আর এক পুত্র হরেনজিৎ সিংহ জানান, তাঁর পিতৃদেব একজন দূরদৃষ্টিসম্পন্ন ও কাজপাগল মানুষ ছিলেন। তাঁর জন্যই আজকে জেআইএস গ্রুপ এতদূর এগিয়েছে। এছাড়া সর্দার যোধ সিংহের নামে একটি বিশেষ মেমোরিয়াল ব্লকেরও উদ্বোধন ও একটি প্রদর্শনীরও আয়োজন করা হয়। জেআইএসের প্রায় ৫০০ ছাত্রছাত্রী, শিক্ষক ও আধিকারিকদের নিয়ে এই অনুষ্ঠানকে জেআইএস কার্নিভাল হিসেব আখ্যা দেওয়া হয়।
এই অনুষ্ঠানে জেআইএস গ্রুপের বিভিন্ন স্কুল ও কলেজের ছাত্রছাত্রীর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করেন। প্রায় ৫০ জন ছাত্রছাত্রীর হাতে তুলে দেওয়া হয় পুরস্কার। প্রাক্তনীদের দেওয়া হয় বিশেষ সংবর্ধনা। সংস্থার ম্যানেজিং ডিরেক্টর তরনজিৎ সিংহ সমাপ্তি ভাষণে জানান, তাঁর পিতৃদেবের উদ্দেশ্য ছিল পশ্চিমবঙ্গে উন্নতমানের শিক্ষা ও কর্মসংস্থানের সুযোগ করে দেওয়া। সেই পথেই চলবে জেআইএস।

Comments
Loading...