নয়া অস্বস্তিতে অনিল আম্বানী, মিউচুয়াল ফান্ড সংস্থা রিলায়েন্স ক্যাপিটালকে বিক্রি করতে হচ্ছে ২০০ কোটি ডলারের সম্পত্তি

ফের নয়া অস্বস্তিতে অনিল আম্বানী। এই দুঃসময়েও কি দাদা মুকেশ আম্বানী ফের একবার তাঁর পাশে দাঁড়াবেন? কিছুদিন আগেই এরিকসন মামলায় দাদা মুকেশের মধ্যস্থতায় জেলযাত্রা বেঁচেছিল অনিল আম্বানীর। এবার ফের আর্থিক সংকটে অনিলের আরও একটি সংস্থা, রিলায়েন্স ক্যাপিটেল লিমিটেড।
২০১৩ সাল থেকে ২০১৭ সালের মধ্যে যে সংস্থার লভ্যাংশ ছিল বিশাল অঙ্কের, সেই মিউচুয়াল ফান্ড সংস্থা, রিলায়েন্স ক্যাপিটেলকে ২০০ কোটি ডলার মূল্যের সম্পত্তি বেচতে হচ্ছে এখন। ‘কেয়ার’ রেটিং অনুযায়ী ২০১৮ আর্থিক বছরে রিলায়েন্স ক্যাপিটেলের নগদ অর্থের অভাব দেখা দেয়। ফলে মিউচুয়াল ফান্ডের ব্যবসায় দেশের মধ্যে পঞ্চম স্থানে থাকা অনিল আম্বানীর এই সংস্থার ঘাড়ে গত মে-জুন মাসে ২৫ কোটি ২০ লক্ষ ডলার ঋণের বোঝা চাপে। এই পরিস্থিতিতে সম্পদ বিক্রি করে দেওয়া ছাড়া আর কোনও রাস্তা খোলা নেই বলে মনে করছেন মুম্বইয়ের ঋণ উপদেষ্টা সংস্থা ‘আদিত্য কনসাল্টিং-এর কর্তা ম্যাথু অ্যান্টনি।
এই আর্থিক দুরাবস্থার ফলে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক রেটিং সংস্থার কাছেও রিলায়েন্স ক্যাপিটেলের রেটিং কমেছে। যে সংস্থার মাত্র এক মাস আগে ‘এএ’ রেটিং ছিল বিভিন্ন আন্তর্জাতিক রেটিং সংস্থার মানদণ্ডে, তা এসেছে ঠেকেছে ‘এ+’ তে।
চলতি বছরের মার্চ মাসে অনিল আম্বানীর আর কম সংস্থার হয়ে সুইডিশ টেলিকম সংস্থা এরিকসনকে ৪৫০ কোটি টাকা ঋণ মিটিয়েছিলেন মুকেশ আম্বানী। আটকে দিয়েছিলে ভাই অনিল আম্বানীর জেলযাত্রা। ভাইয়ের বিপুল আর্থিক সংকটে আরও এককার দাদা মুকেশ রক্ষাকর্তার ভূমিকা নেবেন কিনা সেটাই দেখার।

Comments
Loading...