ঐতিহাসিক রামচন্দ্র গুহকে হেনস্থার প্রতিবাদে সরব এ রাজ্যের বিশিষ্টরা, খোলা চিঠি শঙ্খ ঘোষ, সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় সহ বহু বিদ্বজ্জনের

ইতিহাসবিদ রামচন্দ্র গুহকে পুলিশি হেনস্থার প্রতিবাদে এবার গর্জে উঠলেন বাংলার বুদ্ধিজীবীরা। ঘটনার তীব্র নিন্দা করে খোলা চিঠি (Open Letter By Intellectuals) লিখলেন তাঁরা।

বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টা নাগাদ বেঙ্গালুরুতে এনআরসি এবং সিএএ’র বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে পথে নেমে পুলিশি হেনস্থার সম্মুখীন হতে হয়েছে বিশিষ্ট ঐতিহাসিক রামচন্দ্র গুহকে। পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে, রামচন্দ্রকে বিনা কারণে হেনস্থা এবং নিগ্রহ করা হয়েছে।প্রকাশিত ভিডিওতে দেখা গিয়েছে রামচন্দ্র গুহ এক জায়গায় দাঁড়িয়ে এনআরসি এবং সিএএ’র বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাচ্ছিলেন। সেই সময় পুলিশ গিয়ে তাঁকে জোর করে রীতিমতো ধাক্কা দিতে দিতে চারিদিক দিয়ে ঘিরে ধরে নিয়ে চলে যায়। পরে তাঁকে আটকও করা হয়।
এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই দেশজুড়ে ঘটনার নিন্দা শুরু হয়েছে। ঘটনার প্রতিবাদে সরব হয়েছেন এরাজ্যের বিশিষ্টরাও। এই ঘটনার প্রতিবাদে একটি খোলা চিঠি (Open Letter By Intellectuals) লিখেছেন রাজ্যের ২৮ জন বুদ্ধিজীবী, লেখক, সাহিত্যিক, নাট্যকার এবং সংস্কৃতি জগতের মানুষ। তাঁদের মধ্যে রয়েছেন সাহিত্যিক শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়, অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, কবি শঙ্খ ঘোষ, নাট্যব্যক্তিত্ব রুদ্রপ্রসাদ সেনগুপ্ত, সাহিত্যিক জয়া মিত্র,  চিত্রশিল্পী শুভাপ্রসন্ন, অভিনেতা মনোজ মিত্র, নাট্যকর্মী শাঁওলী মিত্র, অর্পিতা ঘোষ, কবি সুবোধ সরকার প্রমুখ। এই চিঠিতে বিশিষ্টরা বলেছেন, যেভাবে রামচন্দ্র গুহর মতো বিশিষ্ট ইতিহাসবিদকে পুলিশ হেনস্থা করেছে এবং নিগ্রহ করেছে তা নিন্দাজনক। বলা হয়েছে, কেন্দ্রে ফ্যাসিস্ট সরকারের উত্থান হয়েছে এবং তাদের জনবিরোধী পদক্ষেপ যথেষ্ট উদ্বেগের। দেশে যেভাবে প্রতিবাদী  নাগরিক, ছাত্র, বুদ্ধিজীবীদের উপর অত্যাচার কর হচ্ছে সেই বিষয়টি নিয়েও নিন্দা করেছেন বিশিষ্টরা।
বিষয়টি নিয়ে সরব হয়েছেন আরও অনেকে। তাঁদের প্রশ্ন, অশান্তি এড়াতে বেঙ্গালুরু সহ কর্ণাটকের বিস্তীর্ণ এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করা হলেও, রামচন্দ্র গুহ তো একা প্রতিবাদ করেছিলেন, কোনও হিংসাত্মক  আন্দোলন বা কার্যকলাপ তিনি করেননি। তাহলে কেন তাঁকে এভাবে হেনস্থা করা হল এবং আটক করা হল?

Comments
Loading...