রাজীব কুমারকে গ্রেফতার না করার রক্ষাকবচ সরিয়ে নিল আদালত, তবে ৭ দিনের মধ্যে আগাম জামিনের আবেদন করতে পারবেন তিনি

সুপ্রিম কোর্টে ধাক্কা খেলেন রাজীব কুমার। তাঁকে গ্রেফতার করা যাবে না বলে যে রক্ষাকবচ দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট, তা সরিয়ে নেওয়া হল। তবে রাজীব কুমার আগাম জামিনের আবেদন করতে পারবেন বলে জানিয়েছে শীর্ষ আদালত। ৭ দিনের মধ্যে রাজীব কুমার যথাযথ আদালতে জামিনের জন্য আবেদন করতে পারবেন, সেই সময়ের মধ্যে সিবিআই তাঁকে গ্রেফতার করতে পারবে না।

সিবিআই বনাম রাজীব কুমার মামলায় গত প্রায় আড়াই মাস ধরে দফায় দফায় সওয়াল-জবাব চলছে সুপ্রিম কোর্টে। ফেব্রুয়ারির গোড়ায় সিবিআই কলকাতার তৎকালীন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারের সরকারি বাসভবনে হানা দেয়, যে ঘটনাকে কেন্দ্র করে চরমে ওঠে রাজনৈতিক চাপান-উতোর। কেন্দ্রের বিরুদ্ধে রাজ্যে হস্তক্ষেপের অভিযোগ এনে ধরনায় বসেন মুখ্যমন্ত্রী।
এরপরই রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয় সিবিআই। পাশাপাশি, মুখ্যসচিব এবং ডিজির বিরুদ্ধেও সিবিআইকে তদন্তে বাধা দেওয়ার অভিযোগ আনা হয়। সিবিআই কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে সারদা চিট ফান্ড মামলায় তথ্য বিকৃতির অভিযোগ আনে। এই অভিযোগের ভিত্তিতে রাজীব কুমার পাল্টা জানিয়েছিলেন, সিবিআইয়ের প্রাক্তন অন্তর্বর্তীকালীন অধিকর্তা নাগেশ্বর রাওয়ের স্ত্রী এবং মেয়ের সঙ্গে যুক্ত সংস্থা নিয়ে তদন্তের জন্যই সিবিআই উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে তাঁকে হেনস্থা করছে।
সুপ্রিম কোর্ট জানিয়ে দেয়, রাজীব কুমারকে গ্রেফতার করা যাবে না, কিন্তু তাঁকে সিবিআইয়ের সঙ্গে সহযোগিতা করতে হবে। এরপরই শীর্ষ আদালতের নির্দেশে শিলংয়ে রাজীব কুমারকে জিজ্ঞাসাবাদ করে সিবিআই।
কিন্তু সেই জেরাতেও রাজীব কুমার সহযোগিতা করেননি, তাই তাঁকে হেফাজতে নেওয়া জরুরি বলে ফের আদালতে আর্জি জানায় সিবিআই। রাজীব কুমারের আইনজীবী পালটা জানিয়েছিলেন, শিলংয়ে জিজ্ঞাসাবাদের ভিডিও রেকর্ডিং আদালতে জমা দিক সিবিআই। তারপরও দীর্ঘ শুনানি চলে সুপ্রিম কোর্টে।

এদিন বিচারপতি সঞ্জীব খান্না রায়ে জানান, আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে রাজীব কুমার আগাম জামিনের আবেদন করতে পারবেন। সেই সময়ের মধ্যে সিবিআই তাঁকে গ্রেফতার পারবে না।

Comments
Loading...