রেড রোডে বেপরোয়া গাড়ি চালিয়ে সেনা কর্মীর মৃত্যু, সাম্বিয়া সোহরাবের ২ বছর জেল। মৃতের পরিবারকে ১ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ

২০১৬ সালের জানুয়ারি মাসে রেড রোডে প্যারেডের মহড়া চলার সময় বেপরোয়াভাবে গাড়ি চালিয়ে তার ভেতরে ঢুকে এক সেনা কর্মীকে ধাক্কা ও তার জেরে তাঁর মৃত্যুর ঘটনায় মূল অভিযুক্ত সাম্বিয়া সোহরাবকে খুন এবং খুনের চেষ্টার অভিযোগ থেকে মুক্তি দিল আদালত। তবে প্রাক্তন তৃণমূল নেতা মহম্মদ সোহরাবের ছেলে সাম্বিয়াকে বেপরোয়াভাবে গাড়ি চালিয়ে অনিচ্ছাকৃত হত্যা এবং সরকারি সম্পত্তি নষ্ট করার ধারায় দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে। এই দুই ধারাতেই সর্বোচ্চ শাস্তি ২ বছরের কারাদণ্ড। যদিও ইতিমধ্যেই প্রায় ৩ বছর জেলে কাটিয়ে ফেলেছেন সাম্বিয়া ওরফে তৌসিফ সোহরাব।
গত ২০১৬ সালের ১৩ ই জানুয়ারি ভোরে সেনা বাহিনীর মহড়া চলছিল রেড রোডে। তার মধ্যে পুলিশের গার্ড রেল ভেঙে জোরে গাড়ি চালিয়ে ঢুকে পড়ে একটি গাড়ি। ধাক্কা মারে এক সেনা কর্মীকে। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথেই মৃত্যু হয় ওই সেনা কর্মীর। এরপর দ্রুত গাড়ি চালিয়ে পালিয়ে যায় অভিযুক্ত। তদন্তে নেমে পুলিশ জানতে পারে মহম্মদ সোহরাবের ছেলে সাম্বিয়া সোহরাব নিজেই গাড়ি চালাচ্ছিলেন। তিন দিন পর কলকাতা পুলিশ তাঁকে গ্রেফতার করে।
ধৃত সাম্বিয়া সোহরাবের বিরুদ্ধে ৩০২ ধারায় খুন, ৩০৭ ধারায় খুনের চেষ্টা এবং ৪২৭ ধারায় সরকারি সম্পত্তি ভাঙচুরের অভিযোগ আনে পুলিশ। দীর্ঘ প্রায় এক বছর শুনানির পর বুধবার খুন এবং খুনের চেষ্টা দুটি ধারাই খারিজ করে দেন বিচারক মৌমিতা ভট্টাচার্য। বিচারক জানান, খুন এবং খুনের চেষ্টা দুটি ধারাই প্রমাণের জন্য যথেষ্ট সাক্ষ্য-প্রমাণ মেলেনি। তবে বেপরয়োভাবে গাড়ি চালানোর জেরে কারও মৃত্যু ঘটনার অভিযোগে ৩০৪ এ ধারায় তাঁকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে। এর সঙ্গে ১০ হাজার টাকা ফাইন এবং মৃত সেনা কর্মীর পরিবারকে ১ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়।

Comments
Loading...