নেতাজির ৮০ বছর পর ফের দিল্লি চলোর ডাক দিয়েছেন মমতা, বাঁকুড়া থেকে বললেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়

আশি বছর আগে দক্ষিণ কলকাতার বাসিন্দা এক বাঙালি বীর দিল্লি চলোর ডাক দিয়েছিলেন। আশি বছর বাদে ফের দিল্লি চলোর ডাক দিচ্ছেন দক্ষিণ কলকাতারই এক ‘অগ্নিকন্যা’। এভাবেই বাঁকুড়ায় বর্ষীয়ান তৃণমূল নেতা সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের হয়ে প্রচার শুরু করলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

সোমবার বাঁকুড়া লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের সমর্থনে ভোট প্রচারে যান অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। বাঁকুড়া স্টেডিয়ামের সভা থেকে অভিষেক বলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যখন ধর্মনিরপেক্ষ ও প্রগতিশীল সরকার গড়ার ডাক দিয়েছেন, তখন বাংলার মানুষের দায়িত্ব তৃণমূল সরকারের হাত শক্ত করা। এরপরেই অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় সুভাষচন্দ্র বসুর সঙ্গে তুলনা করেন মমতার। তিনি বলেন, আশি বছর আগে দিল্লি চলোর ডাক দিয়েছিলেন সুভাষচন্দ্র বসু। তিনি ছিলেন দক্ষিণ কলকাতার বাসিন্দা। আর আজ যিনি ‘দিল্লি চলো’ ডাক দিচ্ছেন তিনিও সেই দক্ষিণ কলকাতারই মানুষ। অভিষেকের কথায়, আশি বছর আগে নেতাজি বলেছিলেন, ‘তোমরা আমায় রক্ত দাও, আমি তোমাদের স্বাধীনতা দেব।’ আর আশি বছর পরে এ রাজ্যের মানুষের কাছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আবেদন, ৪২ এর ৪২ টি আসন পেলে ধর্মনিরপেক্ষ, শান্তিপ্রিয় ভারতবর্ষ উপহার দেবেন তিনি। ডায়মন্ড হারবারের তৃণমূল প্রার্থী আরও বলেন, নেতাজি যেমন ইংরেজদের কাছে কখনওই মাথা নত করেননি। মমতাও ঠিক তেমন এ রাজ্যের সিপিএমের চাপে নুইয়ে পড়েননি, লড়াই জারি ছিল।
বাংলার মুখ্যমন্ত্রীর প্রকল্প ও কাজকে কেন্দ্রীয় সরকার অনুসরণ করছে বলে বাঁকুড়ার সভা থেকে অভিযোগ করেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। পাশাপাশি, বাঁকুড়া লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থীর ভূয়সী প্রশংসা করে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, রাজ্যের ৪২টি আসনের প্রার্থীদের মধ্যে সবচেয়ে  অভিজ্ঞ, দক্ষ ও পরীক্ষিত প্রার্থীর নাম সুব্রত মুখোপাধ্যায়। তাঁকে বিপুল ভোটে জয়ী করে দিল্লি পাঠানোর আবেদনও রাখেন তৃণমূলের এই তরুণ নেতা।

Comments
Loading...