করোনা আবহে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড বিপর্যস্ত, এই পরিস্থিতিতে এয়ার ইন্ডিয়ার নিলাম প্রক্রিয়া ফের দু’মাস পিছিয়ে দিল কেন্দ্র। আপাতত এই ডেডলাইন ৩১ অগাস্ট পর্যন্ত বাড়িয়েছে মোদী সরকার।
এই নিয়ে তৃতীয় দফায় পিছল এয়ার ইন্ডিয়ার নিলাম প্রক্রিয়া। গত ২৭ জানুয়ারি এয়ার ইন্ডিয়ার নিলাম প্রক্রিয়া শেষ করার কথা ছিল। আর আবেদনপত্র জমা দেওয়ার শেষ সময়সীমা নির্ধারিত হয়েছিল ১৭ মার্চ। কিন্তু করোনা পরিস্থিতির জন্য সেই সময়সীমা প্রথমে বাড়িয়ে ৩০ এপ্রিল করা হয়। এবার ফের ৩১ অগাস্ট পর্যন্ত পিছিয়ে গেল দেশের বৃহত্তম রাষ্ট্রায়ত্ত বিমান সংস্থার নিলামের আবেদনপত্র জমা নেওয়ার শেষ তারিখ।
এ বিষয়ে ডিপার্টমেন্ট অফ ইনভেস্টমেন্ট অ্যান্ড পাবলিক অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট (DIPAM) একটি সংশোধনীপত্র ইস্যু করে জানায়, নিলামে অংশ নিতে চাওয়া সংস্থাগুলি আবেদন করেছে, করোনা পরিস্থিতির দিকে নজর দিয়ে আবেদনপত্র জমা দেওয়ার সময়সীমা বৃদ্ধি করা হোক। সেই পরিপ্রেক্ষিতেই এয়ার ইন্ডিয়ার নিলাম প্রক্রিয়ার সময়সীমা ফের পিছিয়ে দেওয়া হল। পাশাপাশি, নিলামেযোগ্য হিসেবে বিবেচিতদের (QIB) বিজ্ঞপ্তি দেওয়ার সময়সীমাও দু’মাস পিছিয়ে ১৪ সেপ্টেম্বর করা হচ্ছে বলে কিউআইবি জানিয়েছে।
প্রসঙ্গত, দেনায় ভারাক্রান্ত এয়ার ইন্ডিয়ার ১০০ শতাংশ শেয়ার বিক্রির সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র। এর আগে, ২০১৮ সালে এয়ার ইন্ডিয়ার ৭৬ শতাংশ মালিকানা বিক্রি করার জন্য আগ্রহপত্র ছাড়ে মোদী সরকার। যদিও আগ্রহপত্র জমা দেওয়ার সমসয়সীমা বৃদ্ধি করেও তা কেনার লোক মেলেনি। এর কারণ খুঁজতে নিয়োগ করা হয়েছিল উপদেষ্টা সংস্থা। তারা রিপোর্টে জানিয়েছিল, ২৪ শতাংশ অংশীদারি সরকার নিজের হাতে রাখতে চাওয়ায় লগ্নিকারীদের মনে সংশয় দেখা দিচ্ছে। সেই প্রক্রিয়া ভেস্তে যাওয়ার পর এয়ার ইন্ডিয়ার ১০০ শতাংশ মালিকানাই বেচে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় মোদী সরকার।
কেন্দ্রের প্রকাশিত আগ্রহপত্রে বলা হয়েছে, এয়ার ইন্ডিয়া এক্সপ্রেসের ১০০ শতাংশ এবং এয়ার ইন্ডিয়া স্যাটস-এর ৫০ শতাংশ শেয়ার বিক্রি করা হবে। পাশাপাশি, এটাও বলা হয়েছে, যারা এই বিমান সংস্থা কিনবে, তাদের এয়ার ইন্ডিয়ার ২৩ হাজার ২৮৩ কোটি টাকার দেনার দায়ও নিতে হবে। তবে এই মালিকানা কোনও দেশিয় সংস্থার হাতেই ছাড়তে চাইছে কেন্দ্র।
এদিকে ইতিমধ্যে ভারত পেট্রোলিয়াম কর্পস লিমিটেড (বিপিসিএল) এর পুরো ৫২.৯৮ শতাংশ অংশীদারিত্ব নিলামের সময়সীমাও ৩১ জুলাই পর্যন্ত বৃদ্ধি করেছে কেন্দ্র। প্রাথমিক সময়সীমা ছিল ২ মে, পরে তা ১৩ জুন পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হয়েছিল।

ধারাবাহিকভাবে পাশে থাকার জন্য The Bengal Story র পাঠকদের ধন্যবাদ। আমরা যে ধরনের খবর করি, তা আরও ভালোভাবে করতে আপনাদের সাহায্য আমাদের উৎসাহিত করবে।

Login Support us