মাঝরাতে ২ বাংলাদেশিকে পিষে মারল বেপরোয়া জাগুয়ার, গ্রেফতার আরসালান রেস্তরাঁর মালিকের ছেলে

শেকসপিয়র সরণিতে শুক্রবার মাঝরাতে প্রচণ্ড গতিতে গাড়ি চালিয়ে প্রথমে একটি গাড়িকে ধাক্কা এবং তারপর দুই পথচারীকে পিষ্ট করার ঘটনায় নামী রেস্তরাঁ আরসালানের মালিকের ছেলেকে গ্রেফতার করল পুলিশ। পুলিশ সূত্রে খবর, ধৃতের নাম আরসালান পারভেজ। পুলিশ জানিয়েছে, শুক্রবার মাঝরাতে শেকসপিয়র সরণিতে ধরে বেপরোয়া গতিতে ছুটে যাচ্ছিল একটি জাগুয়ার। বিড়লা প্ল্যানেটোরিয়ামের দিক থেকে কলামন্দিরের দিকে যাওয়ার সময় সেটি প্রচণ্ড ধাক্কা মারে একটি মার্সিডিজকে। এরপর জাগুয়ারটি রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে থাকা দুই পথচারীকে পিষে দেয়। ভেঙেচুরে যায় কলকাতা পুলিশের একটি কিয়স্কও। শুক্রবার মধ্য রাতে ঘটনাটি ঘটেছে শেক্সপিয়র সরণি এবং লাউডন স্ট্রিটের সংযোগস্থলে।
শনিবার সকালে এই দুর্ঘটনার পুরোদস্তুর তদন্ত শুরু করে পুলিশ। জাগুয়ারের চালককে গ্রেফতার করে পুলিশ। তদন্তে নেমে পুলিশ প্রথমেই বুঝতে পেরেছিল, ওই গাড়ির রেজিস্ট্রেশন হয়েছে কলকাতার একটি নামী রেস্তরাঁ চেনের নামে। পরে জানা যায়, ঘাতক ওই জাগুয়ারটি সেই সময় চালাচ্ছিলেন ওই রেস্তরাঁ চেনের মালিকের ছেলে আসলাম পারভেজ। এর পরেই বছর বাইশের আরসালানকে গ্রেফতার করে শেকসপিয়র থানার পুলিশ।
পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, বৃষ্টির শহরে রাত দুটো নাগাদ তীব্র গতিতে একটি জাগুয়ার লাউডন স্ট্রিটের কাছে ধাক্কা মারে মার্সিডিজের পেটের কাছে। এর পর জাগুয়ারটি পিষে দেয় রাস্তার পাশে পুলিশ কিয়স্কের কাছে দাঁড়িয়ে থাকা দুই পথচারীকে। গুরুতর জখম ওই দু’জনকে এসএসকেএম হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে তাঁদের মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকেরা। ওই ঘটনায় জখম হন মার্সিডিজের চালক ও আরোহী। ঘটনার পরই গাড়ি ফেলে পালিয়ে যায় জাগুয়ারের চালক।
প্রাথমিক তদন্তে জানা গিয়েছে মৃত দু’জনেই বাংলাদেশি নাগরিক। চিকিৎসার জন্য তাঁরা কলকাতায় এসেছিলেন। পুলিশ জানিয়েছে মৃতদের নাম কাজি মহম্মদ মইনুল আলম (৩৬) এবং ফারহানা ইসলাম তানিয়া(৩০)।

Comments
Loading...