ঘোষিত বিশ্ব বাংলা শারদ সম্মান, সেরা কোভিড ওয়ারিয়র পুজোর শিরোপা আলিপুর বডিগার্ড লাইন্সকে

করোনা আবহে বিধি মেনে দুর্গাপুজোয় ছাড় দিয়েছিল রাজ্য সরকার। কোন পুজো কমিটি কতটা বিধি মেনে পুজো করল, তা বিচার করে এবার রাজ্য সরকারের ‘বিশ্ববাংলা শারদ সম্মানে’ জুড়েছিল সেরা কোভিড ওয়ারিয়র’ এর সম্মান। মোট ১১ টি বিভাগে সেরা পুজো কমিটিগুলোর নাম ঘোষণা করেছে সরকার, যা প্রকাশিত হল ‘এগিয়ে বাংলা’ ওয়েবসাইটে।

বিশ্ববাংলা শারদ সম্মানে এ বার ‘কোভিড ওয়ারিয়র পুজো’র শিরোপা পেয়েছে আলিপুর বডিগার্ড লাইন্স।

সেরার সেরা হিসেবে বেছে নেওয়া হয়েছে মোট ৩৮ টি পুজো কমিটিকে। যার প্রথমে রয়েছে বড়িশা ক্লাব, দ্বিতীয় চেতলা অগ্রণী এবং তৃতীয় স্থানে রয়েছে সুরুচি সংঘ। সেরা মণ্ডপ বিভাগে এবার বিশ্ববাংলা শারদ সম্মান পাচ্ছে বেহালা নতুন সংঘ, সিকদার বাগান সাধারণ দুর্গোৎসব ও চোরবাগান বারোয়ারি।

সেরা প্রতিমা বিভাগে পুরস্কার পাচ্ছে সেলিমপুর পল্লি, কালীঘাট মিলন সংঘ, রাজডাঙা নব উদয় সংঘ ও সল্টলেক সিজে ব্লক পুজো কমিটি।

সেরা আলোকসজ্জা বিভাগে চারটি পুজো কমিটি মনোনীত হয়েছে। এরা হল, হিন্দুস্তান ক্লাব সর্বজনীন দুর্গা পুজো কমিটি, কলেজ স্কোয়ার, সিংহী পার্ক ও সিমলা ব্যায়াম সমিতি।

এ বছর বিশ্ববাংলা শারদ সম্মানের ‘সেরা সাবেকি পুজো’ ক্যাটেগরিতে পুরস্কার পাচ্ছে কুমারটুলি সর্বজনীন, সংঘশ্রী, চালতাবাগান, আদি বালিগঞ্জ ও ভবানীপুর পদ্মপুকুর বারোয়ারি। এছাড়া সেরা ভাবনা, বিশেষ পুরস্কার, সেরা পরিবেশবান্ধব, সেরা ঢাকেশ্রী, সেরা বিশ্ববাংলা ব্র‍্যান্ডিং বিভাগে বিজেতাদের নাম ঘোষণা করেছে রাজ্য সরকার।

২০১৩ সাল থেকে বিশ্ববাংলা শারদ সম্মান দেওয়ার রীতি শুরু করে মমতার সরকার। কলকাতা সহ রাজ্যের বিভিন্ন জায়গা থেকে একাধিক পুজো কমিটি প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়। এবার সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার ব্যবস্থা কারা কতটা করতে পারল, মাস্ক–স্যানিটাইজার মণ্ডপে রাখা ছিল কিনা, তা খতিয়ে দেখে এই বিশেষ সম্মান প্রদান করা হল।

Comments
Loading...