গান্ধীজির স্বাধীনতা আন্দোলন ছিল নাটক, কেন তিনি মহাত্মা, জানি না, অনন্ত হেগড়ের মন্তব্যে বিড়ম্বনায় বিজেপি, ক্ষমা চাওয়ার নির্দেশ

গান্ধীজির স্বাধীনতা আন্দোলন ‘নাটক’ ছাড়া আর কিছুই নয়, কংগ্রেসের নেতারা কখনও ব্রিটিশ পুলিশের মার খাননি বলে মন্তব্য করলেন বিজেপি সাংসদ অনন্তকুমার হেগড়ে। শনিবার বেঙ্গালুরুতে এক জনসভায় প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অনন্তকুমার বলেন, মহাত্মা গান্ধীর স্বাধীনতা আন্দোলন ছিল একটা নাটক। যখনই ইতিহাস পড়ি, রক্ত গরম হয়ে যায়। কীভাবে এমন একজনকে ‘মহাত্মা’ উপাধি দেওয়া হয়েছিল, কে জানে!

এদিকে নেতার এই মন্তব্যে চরম বিড়ম্বনায় পড়েছে বিজেপি। অনন্ত হেগড়েকে নিঃশর্ত ক্ষমা চাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে বিজেপি সূত্রের খবর।
উত্তর কন্নড়ের ছ’বারের সাংসদ অনন্তকুমার হেগড়ের মন্তব্য নিয়ে বিভিন্ন সময়ে তীব্র বিতর্ক হয়েছে। প্রথম মোদী সরকারের আমলের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ২০১৯ লোকসভা ভোটে রাহুল গান্ধীকে ‘হাইব্রিড- টাইপ’ বলে অশালীন মন্তব্য করেন। এবার তাঁর আক্রমণের কেন্দ্র হলেন গান্ধীজি। তাঁর অভিযোগ, পুরো স্বাধীনতা সংগ্রাম ব্রিটিশদের সম্মতি ও সমর্থন নিয়ে মঞ্চস্থ হয়। সেই সময় যাঁরা ‘নেতা’ হিসেবে পরিচিত ছিলেন, তাঁরা কেউই পুলিশের হাতে একবারও মার খাননি। তাঁদের স্বাধীনতা আন্দোলন ছিল ‘বড় নাটক’। ব্রিটিশদের অনুমতিক্রমে যে নাটকে নেতারা ছিলেন অভিনেতা। এঁদের স্বাধীনতা আন্দোলন কোনও সত্যিকারের যুদ্ধ ছিল না। এটা ছিল নিয়ন্ত্রিত স্বাধীনতা আন্দোলন।
জাতির জনককেও কটাক্ষ করতে ছাড়েননি ওই বিজেপি সাংসদ। মহাত্মা গান্ধীর অনশন ও সত্যাগ্রহ আন্দোলনকেও মেকি বলে বর্ণনা করেন অনন্ত হেগড়ে। তিনি বলেন, কংগ্রেস সমর্থকরাই বলে থাকেন, অনশনে মৃত্যু আর সত্যাগ্রহ দিয়ে ভারত স্বাধীনতা পেয়েছে। কিন্তু তা সত্যি নয়। কংগ্রেসের আন্দোলনে নয়, ব্রিটিশরা ভারত ছাড়ে ‘ফ্রাস্ট্রেশনে’।
হেগড়ের এই মন্তব্যের তীব্র সমালোচনা করেন গান্ধীজির পৌত্র তুষার গান্ধী। ট্যুইটারে তিনি বিজেপি সাংসদকে কটাক্ষ করে লেখেন, হেগড়ে ঠিকই বলেছেন যে, বাপুর স্বাধীনতা সংগ্রাম ছিল নাটক। কিন্তু এই নাটকের তীব্রতা এতটাই ছিল যে ব্রিটিশদের অবৈধ আগ্রাসন নড়ে গিয়েছিল, দেশের দাসত্বমোচনে মানুষকে সঙ্ঘবদ্ধ করেছিল।

Comments
Loading...