হিন্দি বলয়ের ৬ রাজ্যে বিজেপির এবার কমতে পারে ৭৫ টি আসন, সাম্প্রতিক নির্বাচনের ফল পর্যালোচনা করে প্রতিবেদন thewire.in এ

ভোট হয়ে গিয়েছে চার দফা, বাকি এখনও তিন। লোকসভা ভোটে কেমন ফল করবে বিজেপি, তার উত্তর লুকিয়ে হিন্দি বলয়ে। ২০১৪ লোকসভা ভোটে দেশের হিন্দি বলয়, অর্থাৎ উত্তর প্রদেশ (৮০), মধ্যপ্রদেশ (২৯), রাজস্থান (২৫), ছত্তিসগঢ় (১১), উত্তরাখণ্ড (৫) এবং হিমাচল প্রদেশ (৪) মিলিয়ে মোট ১৫৪ টির মধ্যে বিজেপি একাই দখল করেছিল ১৪২ টি আসন। মধ্য ও উত্তর ভারতের এই ৬ টি হিন্দিভাষী রাজ্যই ভারতীয় জনতা পার্টিকে সরবরাহ করেছিল অর্ধেক সাংসদ। সেবার বিজেপি মোট জিতেছিল ২৮৩ টি আসন। কিন্তু এবার কী হবে? ইংরেজি পোর্টাল thewire.in এ প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে উঠে এসেছে সেই ছবি। সাম্প্রতিক নির্বাচনগুলোতে শতাংশের হিসেব পর্যালোচনা করে এবারের ফলের পূর্বাভাস দেওয়ার চেষ্টা করেছে তারা।
ছত্তিসগঢ়, রাজস্থান এবং মধ্য প্রদেশে বিধানসভা ভোট হয়েছে গত বছর। অন্যদিকে, উত্তর প্রদেশ, হিমাচল প্রদেশ এবং উত্তরাখণ্ডে ভোট হয়েছে ২০১৭ সালে। সেই নির্বাচনে ভোট শতাংশের হারের সঙ্গে সাম্প্রতিক কিছু প্রবণতা বিশ্লেষণ করে এবারের ভোট শতাংশের হিসেব তৈরি করেছে thewire.in। সেই হিসেবে দেখা যাচ্ছে, বিজেপির শক্ত ঘাঁটি বলে পরিচিত হিন্দি বলয়ে এবার বিপুল লোকসানের মুখে পড়তে হতে পারে মোদী-অমিত শাহদের। এই হিসেবে দেখা যাচ্ছে, বিজেপির পক্ষে ভোট শতাংশে খুব বেশি হেরফের না হলেও ভয়াবহ আকার নিচ্ছে তাদের আসন সংখ্যা।
thewire.in এর বিশ্লেষণে উঠে এসেছে, ২০১৪ সালের নির্বাচনের সঙ্গে তুলনা করলে এবার বিজেপি এই ৬ টি হিন্দিভাষী রাজ্য থেকে অন্তত ৭৫ টি আসন কম পেতে পারে। সবচেয়ে বড় ধাক্কা বিজেপি খাবে উত্তর প্রদেশে। thewire.in এ প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী, বিজেপি উত্তর প্রদেশে হারাতে পারে অন্তত ৪৪ টি আসন। পাশাপাশি রাজস্থানে ১২ টি আসন, মধ্য প্রদেশে ১০ টি আসন, ছত্তিসগঢ়ে ৯ টি আসন হারানোর মতো পরিস্থিতি রয়েছে বলে প্রতিবেদনে প্রকাশ। উত্তর ভারতের ছোট দুই রাজ্য, হিমাচল প্রদেশ ও উত্তরাখণ্ডেই একমাত্র গেরুয়া ঝড় বজায় থাকতে পারে বলে প্রতিবেদনে ইঙ্গিত দেওয়া হয়েছে। সেখানে বিজেপি গতবারের পারফরমেন্স ধরে রাখতে পারে বলে প্রতিবেদনে প্রকাশ।
thewire.in এর প্রতিবেদনে প্রকাশ, উত্তর প্রদেশে বিজেপি হারাচ্ছে কেবলমাত্র ৩ শতাংশ ভোট। কিন্তু আসন সংখ্যার নিরিখে তা কমছে ৪৪ টি।
২০১৪ সালে উত্তর প্রদেশে বিজেপি পেয়েছিল ৪২.৩০ শতাংশ ভোট। আসন পেয়েছিল ৭১ টি। কিন্তু তারপর উত্তর প্রদেশে হওয়া বিভিন্ন লোকসভার উপনির্বাচন এবং বিধানসভা ভোটের ছবি বিশ্লেষণ করে thewire.in এর প্রতিবেদনে উঠে এসেছে, ২০১৯ সালে বিজেপি উত্তর প্রদেশে পেতে পারে ৩৯.৫০ শতাংশ ভোট। আসন সংখ্যা কমে হতে পারে ২৭। একইভাবে ২০১৪ সালে মধ্য প্রদেশে বিজেপি পেয়েছিল ৫৪ শতাংশ ভোট এবং ২৭ টি আসন। এবার বিজেপির ভোট কমে হতে পারে ৪১.০৪ শতাশ, আসন হতে পারে ১৭ টি। রাজস্থানে আগেরবার বিজেপি পেয়েছিল ৫৪.৯০ শতাংশ ভোট, আসন ২৫ টি। এবারের পূর্বাভাস, বিজেপি পেতে পারে ৩৮.৯২ শতাংশ ভোট এবং ১৩ টি আসন। ছত্তিসগঢ়ে ২০১৪ য় বিজেপি পেয়েছিল ৪৮.৭০ শতাংশ ভোট, ১০ টি আসন। এবার তা কমে হতে পারে ৩৩.০২ শতাংশ এবং বিজেপি আসন পেতে পারে মাত্র ১ টি। উত্তরাখণ্ডে বিজেপি গতবার পেয়েছিল ৫৫.৩০ শতাংশ ভোট, আসন এসেছিল ৫ টি। এবার বিজেপির ভোট কমে ৪৬.৫১ শতাংশ হতে পারে বলে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। তবে সেক্ষেত্রেও বিজেপি ২০১৪-এর মতোই ৫ টি আসনই জিততে পারে। একই ছবি হিমাচলেও। সেখানে ২০১৪ সালে বিজেপি পেয়েছিল ৫৩.৩০ শতাংশ, আসন মিলেছিল ৪ টি। এবার ৪৮.০৫ শতাংশ ভোট পেয়েও বিজেপি পেতে পারে ৪ টি আসনই।
সব মিলিয়ে ২০১৪ সালে হিন্দি বলয়ের ৬ টি রাজ্য বিজেপিকে অর্ধেক সাংসদ সরবরাহ করেছিল, এবার তার বেশিরভাগেই বিপরীত হাওয়ার দাপট। ২০১৪ সালে যেখানে হিন্দি বলয়ের প্রধান ৬ রাজ্যের ১৫৪ টি আসনের মধ্যে ১৪২ টি আসন একাই দখল করেছিল বিজেপি, সেখানে এবার বিজেপির ক্ষতি হতে পারে অন্তত ৭৫ টি আসন। অর্থাৎ, ২০১৯ সালেও ফের কেন্দ্রে মোদী সরকার গড়তে হলে বিজেপিকে এই ৬ রাজ্যের বাইরে দুর্দান্ত ফল করতেই হবে। কোন জাদুবলে তা সম্ভব, এখন সেটাই ভেবে বের করার চেষ্টায় গেরুয়া শিবিরের থিঙ্কট্যাঙ্ক।

Comments
Loading...