প্রয়োজনে আমি নিজে যাব জম্মু-কাশ্মীর হাইকোর্ট, মন্তব্য প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের, কেন্দ্রকে নোটিস

দরকার হলে তিনি নিজেই জম্মু-কাশ্মীর হাইকোর্টে যাবেন, মন্তব্য সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের।
সোমবার জম্মু-কাশ্মীর সংক্রান্ত একগুচ্ছ মামলা শুনছিলেন প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ। একটি মামলায় উপত্যকায় শিশুদের মানবাধিকার লঙ্ঘিত হচ্ছে বলে সওয়াল করেন শিশু মানবাধিকার কর্মী এনাক্ষী গাঙ্গুলি। শীর্ষ আদালতে তিনি জানান, ৫ ই অগাস্ট জম্মু-কাশ্মীরের ওপর থেকে বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহারের পর, উপত্যকার শিশুদের মানবাধিকার লঙ্ঘন হচ্ছে। অভিযোগের প্রেক্ষিতে প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ জানান, বিষয়টি নিয়ে জম্মু-কাশ্মীর হাইকোর্টে গেলেন না কেন? এনাক্ষী গাঙ্গুলির আইনজীবী হাজেফি আহমদী জানান, জম্মু-কাশ্মীর হাইকোর্টে যাওয়া তাঁদের পক্ষে বেশ কঠিন। নিরাপত্তা সংক্রান্ত বাধার জন্য তাঁরা হাইকোর্টে ঢুকতেই পারেননি বলে শীর্ষ আদালতে সওয়াল করেন আইনজীবী। এই প্রেক্ষিতে সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি বলেন, প্রয়োজনে তিনি নিজেই যাবেন সেখানে। গিয়ে খতিয়ে দেখবেন, মামলা করার মতো পরিস্থিতি হাইকোর্টে রয়েছে কিনা।
প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ প্রশ্ন করেন, ঠিক কী কারণে জম্মু-কাশ্মীর হাইকোর্টে যাওয়া যাচ্ছে না? পথে কি কেউ বাধা দিচ্ছেন? এবিষয়ে জম্মু-কাশ্মীর হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির সঙ্গেও তিনি কথা বলবেন বলে জানান প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ। তারপরই তিনি বলেন, দরকার হলে তিনি নিজেই জম্মু-কাশ্মীর হাইকোর্টে গিয়ে পরিস্থিতি খতিয়ে দেখে আসবেন। এবিষয়ে কেন্দ্রের কাছে নোটিস পাঠিয়ে জবাবও তলব করেছে সুপ্রিম কোর্ট।

এদিন জম্মু-কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আবদুল্লার বন্দিদশা নিয়ে ভাইকোর দায়ের করা মামলায় সরকার পক্ষের জবাব তলব করেন সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি। পাশাপাশি কংগ্রেস নেতা গুলাম নবি আজাদকে শর্তসাপেক্ষে জম্মু-কাশ্মীর যাওয়ার অনুমতি দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। অন্যদিকে, জম্মু-কাশ্মীরের সিপিএম নেতা মহম্মদ ইউসুফ তারিগামি দিল্লির এইমসে চিকিৎসার পরেও কেন শ্রীনগরে ফিরে যেতে পারছেন না, এ বিষয়েও জানতে চায় সুপ্রিম কোর্ট। তারিগামির আইনজীবী জানান, অসুস্থ সিপিএম নেতার সঙ্গে দিল্লিতে সহজে দেখা করতে পারছেন তাঁর দলীয় সতীর্থ ও আত্মীয়-স্বজন। কিন্তু জম্মু-কাশ্মীরে সেই সুযোগ হচ্ছে না।

Comments
Loading...