সিঙ্গুরে মনোনয়নে বাম-চমক! ইচ্ছুক কৃষককে নিয়ে মনোনয়ন পেশ সিপিএমের সৃজনের

সিঙ্গুরের মাটিতে পা রেখেই সিপিএম প্রার্থী বলেছিলেন, তাঁরা ক্ষমতায় ফিরলে সিঙ্গুরে শিল্প ফিরবে

শুক্রবার সিঙ্গুরে সিপিএম প্রার্থী সৃজন ভট্টাচার্য মনোনয়ন জমা দিলেন। মনোনয়ন জমা দেওয়ায় ছিল এক চমক। সিঙ্গুরের ইচ্ছুক কৃষক রবীন সাহানাকে নিয়ে চন্দনগর সাবডিভিশনাল অফিসে মনোয়ন জমা দেন সৃজন। তরুণ সিপিএম নেতা সৃজনের কথায়, রবীন সাহানা আসলে রাজ্যে শিল্পায়নের প্রতীক।
সিঙ্গুরের মাটিতে পা রেখেই সিপিএম প্রার্থী বলেছিলেন, তাঁরা ক্ষমতায় ফিরলে সিঙ্গুরে শিল্প ফিরবে। প্রস্তাবিত জমিতেই তাঁরা ফের কারখানা করবেন। এদিন সৃজন অভিনব কায়দায় মনোনয়ন জমা দিয়ে ফের একবার সেই দাবিতেই সিলমোহর দিলেন।
রবীনবাবু বর্তমানে একজন সেলসম্যান। তিনি বলেন, আমি সিপিএমের পার্টি সদস্য নই। কিন্তু সিঙ্গুরের মাটিতে শিল্পায়নের সমর্থক।
সিঙ্গুরে একেবারে শুরু থেকেই শিল্পায়নের দাবি সামনে তুলে ধরে প্রচার চালাচ্ছেন সৃজন ভট্টাচার্য। মনোনয়ন পেশের সময়ও সেই শিল্পায়নের নীতিতেই জোর দিল সিপিএম।
২০০৬ সালে রবীনবাবু ও তাঁর পরিবার ০.৬৭ একর জমি টাটাদের দেন, বিনিময়ে ৪.৫ লক্ষ টাকা তাঁরা পান। ইচ্ছুক কৃষকের দাবি, তিনি জমির যথাযথ মূল্য পেয়েছিলেন। রবীনবাবু জানান, সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে ২০১৬ সালে জমি ফেরত পেলেও সেই জমি এখন চাষ অযোগ্য। তাঁর অভিযোগ, তৃণমূল কংগ্রেস ক্ষমতায় আসার জন্য সিঙ্গুরে জমি আন্দোলন করেছে। কিন্তু আমাদের আগামী প্রজন্মের জন্য সিঙ্গুরে শিল্প প্রয়োজন।

[আরও পড়ুন- রিকশা চালিয়ে মনোনয়ন জমা TMC-র মনোরঞ্জন ব্যাপারীর, বলাগড়ে জয় নিশ্চিত, দাবি প্রার্থীর]

একুশের নির্বাচনে সবথেকে আলোচিত কেন্দ্রের নাম নন্দীগ্রাম হলেও, সিঙ্গুরের দিকেও নজর গোটা রাজ্য তথা দেশবাসীর। সিঙ্গুর নন্দীগ্রামের ভূমি আন্দোলনে ভর করেই রাজ্যে তৃণমূল কংগ্রেস ক্ষমতায় এসেছিল বলে মনে করেন অনেকে।
এবার নন্দীগ্রাম ও সিঙ্গুর, দুই কেন্দ্রেই আলিমুদ্দিন প্রার্থী করেছে দলের তরুণ দুই নেতা নেত্রীকে।
নন্দীগ্রামে মমতা ব্যানার্জি, শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে সিপিএম প্রার্থী মীনাক্ষী মুখার্জি। সিঙ্গুরে তৃণমূল প্রার্থী ভূমি আন্দোলনের অন্যতম নেতা বেচারাম মান্না। বিজেপির প্রার্থী সদ্য তৃণমূল ত্যাগী সিঙ্গুরের জমি আন্দোলনের অন্যতম নেতা রবীন্দ্রনাথ ভট্রাচার্য। সিঙ্গুরের মাস্টারমশাইকে নিয়ে ইতিমধ্যেই বিজেপির একাংশের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। কিন্তু সেই সমস্যা নেই সিপিএমের।
প্রার্থী ঘোষণা হওয়ার পর থেকেই সৃজন ভট্টাচার্য পার্টি কমরেডদের নিয়ে চষে বেড়াচ্ছেন গোটা সিঙ্গুর। এখন দেখার সিপিএমের সিঙ্গুরে শিল্পায়নের দাবি ভোট বাক্সে কতটা প্রভাব ফেলতে পারে।

Comments
Loading...