‘ডাক্তারের পিঠের চামড়ার ঢাক যদি জোরে বাজে, খারাপ কি?’ BJP-র ভিডিওকে কটাক্ষ করে ট্যুইট কুণাল সরকারের

বাংলা দখলের লক্ষ্যে ঝাঁপিয়ে পড়েছে বিজেপি। অমিত শাহ বঙ্গের গেরুয়া শিবিরকে ২০০ আসনের লক্ষ্য ধরে দিয়েছেন। সেই লক্ষ্যকে বাস্তব করতে চেষ্টার কসুর করছে না বিজেপি শিবির। দোরে দোরে প্রচার যেমন চলছে তেমনই সোশ্যাল মিডিয়াকে কাজে লাগিয়ে পৌঁছনোর চেষ্টা চলছে আরও বেশি মানুষের কাছে। আর সেই লক্ষ্যেই বিতর্কে জড়িয়ে পড়ল বিশ্বের সবচেয়ে বড়ো রাজনৈতিক দল। সৌজন্যে একটি ভিডিও। 

ভারতীয় জনতা পার্টির পক্ষ থেকে জারি করা সেই ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে একটি বাঙালি পরিবারকে। যাঁরা পরিবারের এক সদস্যের অসময় মৃত্যু নিয়ে চিকিৎসা পরিকাঠামোর সমালোচনা করছেন। ডায়লগে শোনা যাচ্ছে ডাক্তার থেকে স্বাস্থ্যকর্মী, সকলের দুর্নীতির অভিযোগ। দুর্নীতির কারণেই পরিবারটি ছেলেকে হারিয়েছে বলে জানানো হয় ভিডিওতে। পিছনে আগাগোড়া বাজতে শোনা যায় কবিগুরুর বিধির বিধান কাটবে তুমি এমন শক্তিমান গানের মিউজিক। ভয়েজ ওভারে শোনা যায়, এই অবস্থার অবসান করতে এবার বিজেপিকে ভোট দিচ্ছে ওই পরিবার। যা উস্কে দিয়েছে একটি নতুন বিতর্ক, বিজেপি কি মুষ্টিমেয় দুর্নীতিগ্রস্ত স্বাস্থ্য কর্মীদের কথা বলতে গিয়ে সমগ্র চিকিৎসক মহলকেই নিশানা করল? 

এই প্রশ্ন তুলে বিজেপিকে বিঁধলেন শহরের নামি হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ কুণাল সরকার। রবিবার একটি ট্যুইটে বিজেপির একটি প্রচার ভিডিও শেয়ার করে তিনি লেখেন, আবার একটি সর্বভারতীয় দল তাঁদের শ্রদ্ধায় রাঙ্গিয়ে দিলেন। একেবারে শেষে লিখেছেন, ডাক্তারের পিঠের চামড়ার ঢাক যদি জোরে বাজে – খারাপ কি?

ছোট ছোট অডিও-ভিজুয়াল ক্লিপের সাহায্যে বিভিন্ন বিষয়েই রাজনৈতিক প্রচার নতুন কিছু না। ডান থেকে বাম, কংগ্রেস থেকে সিপিএম, বিজেপি, সবাই এভির সাহায্য নিয়ে থাকে। কিন্তু বিজেপির নির্দিষ্ট ক্লিপে যেভাবে ডাক্তার ও স্বাস্থ্যকর্মীদের দুর্নীতিগ্রস্ত হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে তা মানতে পারছেন না চিকিৎসক মহল। নিজের অসন্তোষ ট্যুইটে লিখেছেন চিকিৎসক কুণাল। চিকিৎসক কুণাল সরকারের সঙ্গে এই সংক্রান্ত প্রতিক্রিয়ার জন্য যোগাযোগ করা হয়েছে। তিনি এই বিষয়ে নিজের বক্তব্য জানালে, এখানেও আপডেট করা হবে। 

Comments
Loading...