শোভনের নিরাপত্তা ফেরাল তৃণমূল, দলে ফেরা নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে

তৃণমূলে ফিরছেন কি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্নেহের কানন? শুক্রবার রাজ্য সরকার প্রাক্তন মন্ত্রী ও কলকাতার প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়ের নিরাপত্তা বাড়িয়ে দেওয়ায় রাজনৈতিক মহলে তা নিয়ে জোর জল্পনা শুরু হয়েছে। মাস কয়েক আগে রাজ্য সরকার শোভনের নিরাপত্তা রক্ষী একেবারে কমিয়ে দিয়েছিল। তার পরেই তিনি দিল্লিতে গিয়ে বিজেপিতে যোগ দেন বান্ধবী বৈশাখীকে সঙ্গে নিয়ে। শোভনের নিরাপত্তা রক্ষী তুলে নেওয়া নিয়ে বিজেপি নেতারা রাজ্য সরকারের সমালোচনাও করেন। দিন কয়েক আগে বৈশাখী শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়ি যান। তখন থেকেই একটা জল্পনা চলছিল। সেই জল্পনায় ইন্ধন দেয় শোভনের কালীঘাটে গিয়ে মমতার কাছে ভাইফোঁটা নেওয়ার ঘটনা। রাজ্য বিজেপির অস্বস্তি বাড়িয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে সটান চলে গিয়েছিলেন তিনি। সঙ্গী ছিলেন বান্ধবীও।
অগাস্ট মাসে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর থেকেই শোভন-বৈশাখী যে নতুন দলে স্বচ্ছন্দ নন, তা তাঁরা বারে বারে বুঝিয়ে দিয়েছেন। তখনও অনেক গুজব হাওয়ায় ভাসছিল তাঁদের তৃণমূলে ফেরা নিয়ে। সেই সময় শোভনের বক্তব্য ছিল, সময়ই শেষ কথা বলবে। সূত্রের খবর, ভাইফোঁটার দিন ব্যক্তিগত আলাপচারিতায় শোভনের শরীর কেমন আছে জানতে চান ‘দিদি’ মমতা। দীর্ঘ দিন ধরে ব্লাড সুগারের সমস্যা রয়েছে শোভনের। মুখ্যমন্ত্রী নাকি শোভনকে জিজ্ঞেস করেন, নিয়মমাফিক সকালে হাঁটাহাঁটি হচ্ছে তো? জবাবে শোভন জানান, নিরাপত্তার সমস্যার জন্য হাঁটাহাঁটি করা হচ্ছে না। তারপরেই শুক্রবার শোভনের ওয়াই প্লাস ক্যাটেগরির নিরাপত্তার ব্যবস্থা করল তৃণমূল সরকার। তাঁর জন্য আটজন নিরাপত্তা রক্ষীর ব্যবস্থা করা হয়েছে। এতেই জল্পনা তুঙ্গে উঠেছে, তবে কি খুব তাড়াতাড়িই তৃণমূলে ফিরছেন দিদির স্নেহের কানন?
মুখ্যমন্ত্রীর কাছে শোভনের ভাইফোঁটা নিতে যাওয়ার ব্যাপারটা একেবারেই ভালোভাবে নেয়নি বিজেপি নেতৃত্ব। দলের রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেছিলেন, রাজনীতিতে কে কোথায় থাকবে, কেউ বলতে পারে না। এমনকী তৃণমূল নেত্রীর কাছে ভাইফোঁটা নিতে যাওয়ায় শোভনকে বিজেপি শো-কজ করার কথাও ভেবেছিল বলে খবর। এ ব্যাপারে শোভনের এবং বিজেপির কোনও প্রতিক্রিয়া মেলেনি।

Comments
Loading...