বিস্তর নাটক, রাজ্যপালকে বাদ দিয়েই যাদবপুরে হল সাধারণ সমাবর্তন

সোমবার ছাত্র, শিক্ষাকর্মীদের প্রবল বিক্ষোভের মুখে পড়ে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যলয়ের কোর্ট বৈঠকে যোগ দিতে পারেননি রাজ্যপাল তথা আচার্য জগদীপ ধনকড়। রাজ্য সরকার ও বিশ্ববিদ্যালয়ের উপর ক্ষোভ উগড়ে দিয়ে ক্যাম্পাস ছেড়ে ছিলেন তিনি। জানিয়ে গিয়েছিলেন, মঙ্গলবার সমাবর্তন উৎসবে তিনি হাজির থাকবেন। সেই মতো এদিন ১০ টা ৪৫ মিনিটের আগেই ক্যাম্পাসে পৌঁছে যান তিনি। এদিনও চলল তাঁর গাড়ি ঘিরে কালো পতাকা হাতে নিয়ে বিক্ষোভ, তার নেতৃত্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের তৃণমূল প্রভাবিত শিক্ষাবন্ধু সমিতি। তাদের দাবি, রাজ্যপালকে বাদ দিয়েই সমাবর্তন করতে হবে। রাজ্যপালও নাছোড়, তিনি সমাবর্তনে থাকবেনই। এ নিয়ে চলল বিস্তর টানাপড়েন। এদিকে সমাবর্তনের মঞ্চ তৈরি। কিন্তু নির্ধারিত সময় পেরিয়ে গেলেও মঞ্চ ফাঁকা। তার মধ্যেই একদল পড়ুয়ার দাবি, বিজেপির দালাল ধনকড়ের হাত থেকে তাঁরা ডিগ্রি নেবেন না। হলুদ রোব পরে অনেক পড়ুয়া হাজির। খুব্ধ ধনকড় চিৎকার করে মিডিয়ার সামনে গলা ফাটাচ্ছেন, রাজ্য সরকারের মদতে এই বিক্ষোভ চলছে। রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভেঙে পড়েছে। যা চলছে, তাতে আমি ব্যথিত, ক্ষুব্ধ, উদ্বিগ্ন, মর্মাহত। এসব অগ্নিগর্ভ ভাষণ দিয়ে শেষে তিনি রণে ভঙ্গ দিলেন।
আন্যদিকে কোর্ট সদস্যরা বিক্ষোভকারী শিক্ষাকর্মীদের দফায় দফায় বোঝানোর চেষ্টা করলেন। তাঁরাও অনড়, রাজ্যপালকে ছাড়াই সমাবর্তন করতে হবে। পরে ফের বসল কোর্ট বৈঠক। সেখানে সিদ্ধান্ত হল, রাজ্যপালকে বাদ দিয়েই সমাবর্তন হবে। হলও তাই। চুম্বকে এই হল মঙ্গলবারের সমাবর্তনের নির্যাস।

Comments
Loading...