জোড়া জনসভা থেকে মমতা সরকারকে আক্রমণ জে পি নাড্ডার, পাল্টা জবাব তৃণমূলের

৩ দিনের মধ্যে দ্বিতীয়বার বাংলায় এসে প্রত্যাশিতভাবেই মমতা সরকারের বিরুদ্ধে সুর চড়ালেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জে পি নাড্ডা। বুধবার তারাপীঠে দ্বিতীয় দফার রথযাত্রার সূচনা করেন তিনি। এরপর তারাপীঠের চিলার মাঠে বক্তব্য রাখতে গিয়ে নাড্ডা মমতা ব্যানার্জির পাশাপাশি অভিষেক ব্যানার্জিকেও তুলোধনা করেন। বলেন, বিজেপিকে ভয় পাচ্ছে তৃণমূল। তোষন, তোলাবাজের রাজনীতি করে যাচ্ছেন ডায়মন্ড হারবারের সাংসদ। নাড্ডার তোপ, অনেক হয়েছে মমতা, পরিবর্তন চাইছে জনতা।  

একইদিনে ঝাড়গ্রামের লালগড়েও সভা করেন নাড্ডা। সেখানে তাঁর অভিযোগে বিদ্ধ হন অভিষেক ব্যানার্জি। অভিষেকের কাঁথির সভায় অধিকারী পরিবারকে নিয়ে মন্তব্যের তীব্র সমালোচনা করেন তিনি। বলেন, শুভেন্দু অধিকারীর বাবাকে জঘন্য ভাষায় আক্রমণ করেছেন অভিষেক। এটা কী সংস্কৃতি? প্রশ্ন জে পি নাড্ডার। বাংলায় অরবিন্দ, রবীন্দ্রনাথ, শ্যামাপ্রসাদের সংস্কৃতি স্থাপিত হবে বলেও দাবি করেন তিনি।

বাংলার সংস্কৃতি তলানিতে ঠেকেছে অভিযোগ করে নাড্ডা জানান,  বাংলায় ভাইয়ে ভাইয়ে লড়াই বাঁধিয়ে দেওয়া হচ্ছে। মমতার রাজত্বে সংকটে বাংলা। কেন্দ্রের একের পর এক প্রকল্পের নাম বদল করে নিজের প্রকল্প বলে চালাচ্ছেন মমতা। তিনি বলেন, এক দেশ এক আইনের পক্ষে বিজেপি। বাংলায় উন্নয়নের চাবিকাঠি হল পরিবর্তন যাত্রা। 

লালগড় থেকে নাড্ডা কেন্দ্রের কিষাণ নিধি প্রকল্পের কথা তুলে ধরেন। বলেন, এই প্রকল্পে দেশের ১১ কোটি কৃষক সাহায্য পেয়েছেন। কিন্তু বাংলায় ৭৩ লক্ষ কৃষক এই প্রকল্প থেকে বঞ্চিত। মমতা ব্যানার্জি এই প্রকল্পের আওতায় আনতে চাইছেন না বাংলার কৃষকদের। বিজেপি ক্ষমতায় এলে কিষাণ নিধির বাকি থাকা টাকাও পাবেন কৃষকরা। 

তিনি তৃণমূল নেতাদের উদ্দেশ্য করে বলেন, মোদীজি বাংলার উন্নয়নে টাকা পাঠান, কিন্তু সেই টাকা গরিবের কাছে পৌঁছয় না।  সব টাকা তৃণমূল নেতাদের পকেটে ঢোকে বলেও অভিযোগ করেন তিনি। রাজ্যে বিজেপি কর্মীদের নির্বিচারে হত্যা করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি। 

এদিকে বিজেপির পরিবর্তন যাত্রাকে ফ্লপ শো বলে কটাক্ষ করেছেন বীরভূমের তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। অভিযোগের পক্ষে অনুব্রত মণ্ডল নাড্ডার সভার একটি ছবিও দেখান।

Comments
Loading...