মোদীর দলকে ভোটে হারাবে মানুষ, সেটাই গণতন্ত্রের থাপ্পড়, থাপ্পড় ইস্যুতে মোদীকে জবাব মমতার

৪২ জনের মধ্যে একজন তৃণমূল প্রার্থীকে কোল মাফিয়া বলে প্রমাণ করতে পারলে, তাঁর প্রার্থীপদ তুলে নেওয়া হবে, কিন্তু প্রমাণ করতে না পারলে জনগণের সামনে নরেন্দ্র মোদীকে একশোবার কান ধরে ওঠবোস করতে হবে, ওপেন চ্যালেঞ্জ তৃণমূল নেত্রীর।
বৃহস্পতিবার বাঁকুড়ার তামলির বাঁধের সভা থেকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে আক্রমণ করে মমতার ঘোষণা, তাঁর কাছে একটি পেন ড্রাইভ আছে যার মধ্যে রয়েছে বিজেপি মন্ত্রীদের বিরুদ্ধে দুর্নীতির প্রমাণ। এই পেন ড্রাইভের তথ্য বাজারে ছেড়ে দিলে গরু পাচার থেকে কোল মাফিয়া সংক্রান্ত অনেক কিছু বেরিয়ে আসবে, হুঁশিয়ারি মমতার। এদিন তাঁর সরকারের বিরুদ্ধে নরেন্দ্র মোদীর একের পর এক অভিযোগের জবাবে মমতার পাল্টা অভিযোগ, কাউন্সিলর হওয়ারই যোগ্যতা নেই মোদীর।
প্রচণ্ড গরমে বাংলায় সাত দফা ভোট সূচি তৈরি হোক বা বুথে বুথে ১০০ শতাংশ কেন্দ্রীয় বাহিনী নিয়োগ করা, সবক্ষেত্রে মোদীর হাত রয়েছে বলে দাবি করেন মমতা। তাঁর অভিযোগ, নিজের সুবিধার কথা ভেবে নির্বাচনী সূচি তৈরি করেছেন নরেন্দ্র মোদী। কেন্দ্রীয় বাহিনী থেকে নির্বাচন কমিশন, সবাইকে ‘ভয়’ দেখাচ্ছেন নরেন্দ্র মোদী, দাবি মমতার। তৃণমূল সরকারের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর দুর্নীতির অভিযোগের প্রেক্ষিতে মমতার প্রতিক্রিয়া, গুজরাতের মুখ্যমন্ত্রী থাকাকালীন নানা দুর্নীতি করেছেন মোদী। পাশাপাশি এ রাজ্যে বিজেপিকে সভা করতে দেওয়া হচ্ছে না বলে মোদী যে অভিযোগ করছেন, তা নস্যাৎ করে মমতা বলেন, বিজেপির সভার জন্য কোনও জমিদাতাই জমি দিতে রাজি হননি।

এদিন শিমুলিয়ার সভা থেকে মমতা অভিযোগ করেন, বেছে বেছে বিরোধী রাজ্যগুলিতে সেন্ট্রাল ফোর্স মোতায়েন করা হচ্ছে। তৃণমূল নেত্রীর প্রশ্ন, বিজেপি যে রাজ্যগুলিতে ক্ষমতায় আছে, সেখানে কেন কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে ভোট হবে না? পুরুলিয়ায় মোদীর সভায় চেয়ার ছোড়াছুড়ি নিয়েও তীব্র কটাক্ষ করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পাশাপাশি এদিন মমতা থাপ্পড় ইস্যু নিয়েও নিজের ব্যাখ্যা দেন। তিনি বলেন, মানুষ বিজেপিকে ভোটে হারাবে, সেটাই হবে গণতন্ত্রের থাপ্পড়।

Comments
Loading...