অন্য রাজ্যের সঙ্গে তুলনা করে বঙ্গ পুলিশের ঢালাও প্রশংসা মুখ্যমন্ত্রীর, বললেন, লকডাউন অমান্য করে বিরোধীদের জমায়েতেই বেশি সংক্রমিত হচ্ছে পুলিশ

করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে অন্যান্য রাজ্যের চেয়ে অনেক ভালো কাজ করছে বাংলার পুলিশ। লকডাউন বিধি অমান্য করে বিরোধী রাজনৈতিক দলের মিটিং, জমায়েত সামলাতে গিয়ে করোনা সংক্রমিত হওয়ার আশঙ্কা বাড়ছে পুলিশের। রাজ্য ও কলকাতা পুলিশের ভূয়সী প্রশংসা করে বিরোধীদের তীব্র সমালোচনা করলেন মুখ্যমন্ত্রী।

সোমবার নবান্ন থেকে মমতা ব্যানার্জি বলেন, যাঁরা দু’একটা ছোট ঘটনা নিয়ে বাংলার পুলিশের নিন্দা ও সমালোচনা করেন, তাঁরা যেন উত্তরপ্রদেশ, গুজরাত ইত্যাদি রাজ্যের দিকে খেয়াল রাখেন। অন্যান্য রাজ্যের পুলিশের সঙ্গে তুলনা করলে দেখবেন বাংলার পুলিশই সেরা।

করোনা পরিস্থিতির মধ্যে পুলিশ যেভাবে মানুষের জন্য কাজ করছে, সবাইকে সুরক্ষিত রাখতে গিয়ে নিজেদের প্রাণ বিপন্ন করছে তার জন্য রাজ্যের পুলিশ বাহিনীকে কুর্নিশ জানান মুখ্যমন্ত্রী। তিনি ঘোষণা করেন, তাঁদেরকে সম্মান জানানোর জন্য এবার থেকে প্রতিবছর ১ সেপ্টেম্বর দিনটি পুলিশ দিবস হিসেবে পালিত হবে। মমতা জানান, এ পর্যন্ত ১৮ জন পুলিশ কর্মী করোনায় প্রাণ দিয়েছেন। লকডাউনের মধ্যে সাধারণ মানুষের সুবিধা অসুবিধায় তাঁরা পাশে থেকেছেন, অসুস্থদের জন্য অ্যাম্বুলেন্স জোগাড় করা থেকে খাবার পৌঁছে দেওয়া, আইন রক্ষার পাশাপাশি বহু দায়িত্ব পালন করেছে পুলিশ। কিন্তু বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলি লকডাউন অমান্য করে মিটিং, মিছিল ও জমায়েত করার ফলে পুলিশের সঙ্গে সরাসরি সংঘাত হচ্ছে। সেখান থেকে পুলিশের মধ্যে ছড়াচ্ছে কোভিড সংক্রমণ, দাবি মুখ্যমন্ত্রীর। তিনি বলেন, সাধারণ মানুষ ও পুলিশের মধ্যে সুসম্পর্ক তৈরি করার লক্ষ্য নিয়েই প্রতিবছর ১ সেপ্টেম্বর রাজ্যে পুলিশ দিবস পালিত হবে।

পাশাপাশি পুলিশ ওয়েলফেয়ার বোর্ডের পুনর্গঠনের কথাও ঘোষণা করেছেন মমতা। জানান, পুলিশ অফিসার ও কর্মীদের সুযোগ সুবিধা, অসুবিধা জেনে তার সমাধান করাই হবে ওয়েলফেয়ার বোর্ডের প্রধান কাজ। পুলিশের উপর মহল ও নীচু তলার কর্মীদের সংযোগ স্থাপনের জন্য থাকবেন কো-অর্ডিনেটর। পুরুষ-মহিলা নির্বিশেষে সব পুলিশ অফিসার যাতে একই সময় পদোন্নতির সুযোগ পান তার জন্যও বিশেষ ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, মন্ত্রিসভা সিদ্ধান্ত নিয়েছে, লিঙ্গ নির্বিশেষে পুলিশদের জন্য থাকবে কমন গ্রেডেশন লিস্ট।

পুলিশ দিবসে অন্যান্য কোভিড যোদ্ধাদেরও সম্মান জানানো হবে বলে জানান মমতা। বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম, চ্যানেলের যে কর্মীরা কোভিড জয় করে সুস্থ হয়েছেন তাঁদের একটি তালিকা চান মমতা। পাশাপাশি করোনায় মৃত্যু হওয়া সাংবাদিকদের পরিবারের একজনের চাকরির চেষ্টাও সরকার করবে বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী।

এদিন মমতা আরও জানান, কোভিড পরিস্থিতিতে আগামী বছর পর্যন্ত বিনামূল্যে রেশন পাবেন তৃতীয় লিঙ্গের মানুষরা। আপাতত স্লিপের মাধ্যমে রেশন বিলি হবে। পরে সবাইকে রেশন কার্ড দেওয়া হবে বলে ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির।

Comments
Loading...