নৈহাটি পুরসভাও দখলে রাখল তৃণমূল, আস্থাভোটে ২৪-০ ব্যবধানে হার বিজেপির

বনগাঁ, হালিশহর, গারুলিয়ার পর এবার নৈহাটি পুরসভাও নিজেদের দখলে রাখল তৃণমূল। বুধবার উত্তর ২৪ পরগনার নৈহাটি পুরসভার আস্থাভোট ২৪-০ ব্যবধানে জিতে নেয় ঘাসফুল শিবির।
গত ২৫ শে সেপ্টেম্বর কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশ অনুযায়ী তৃণমূল পুরপ্রধান অশোক চট্টোপাধ্যায়ের শক্তি পরীক্ষা হয়। বুধবার সকাল ১১ টায় উত্তর ২৪ পরগনার জেলা শাসকের কার্যালয়ে নৈহাটি পুরসভার আস্থাভোট হয়। পুরসভার মোট ৩১ টি আসনের মধ্যে ২৪-০ ব্যবধানে জয়লাভ করে তৃণমূল। বিজেপির ৭ কাউন্সিলর এদিন আস্থাভোটে অংশগ্রহণ করেননি। তাঁদের গরহাজিরার কারণ জানতে চাইলে বিজেপি কাউন্সিলার গণেশ দাস জানান, শীর্ষ নেতৃত্ব তাঁদের আস্থাভোটে অংশগ্রহণ করতে বারণ করেছে। তাই তাঁরা যাননি। এর ফলে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নৈহাটি পুরসভা দখলে রাখল তৃণমূল।
প্রসঙ্গত, লোকসভা ভোটের মুখে বেশ কয়েকজন কাউন্সিলার তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন। এরপর নৈহাটি পুরসভায় পুর প্রশাসক বসায় সরকার। এই প্রেক্ষিতে কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয় বিজেপি। গত ২৫ শে সেপ্টেম্বর হাইকোর্ট রায় দেয় জেলা শাসকের কার্যালয়ে আস্থাভোট করতে হবে। এরপর, ৩০ শে সেপ্টেম্বর উত্তর ২৪ পরগনার জেলা শাসককে চিঠি পাঠান নৈহাটি পুরসভার তৃণমূল পুরপ্রধান অশোক চট্টোপাধ্যায়। ১৬ ই অক্টোবর আস্থাভোটের দিন স্থির করেন জেলাশাসক।
লোকসভা ভোটের মুখে উত্তর ২৪ পরগনায় দলে দলে তৃণমূল নেতারা বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন। কিন্তু ভোট মিটতেই ড্যামেজ কন্ট্রোলে নামে তৃণমূল। তৃণমূলত্যাগী নেতাদের ফিরিয়ে এনে বনগাঁ, হালিশহর পুরসভায় নিজেদের ক্ষমতা পুনঃপ্রতিষ্ঠা করে তারা। বুধবার নৈহাটি পুরসভায় আস্থাভোটে জিতল রাজ্যের শাসক দল।

Comments
Loading...