শিলিগুড়িতে মমতা ব্যানার্জি: বাংলায় এনআরসি হবে না, নিশ্চিন্ত করে দিয়ে গেলাম

বাংলায় এনআরসি হবে না, কোনও ভাগাভাগি হবে না। আপনাদের নিশ্চিন্ত করে দিয়ে গেলাম। শিলিগুড়িতে এনআরসি প্রসঙ্গে মন্তব্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির।
সোমবার শিলিগুড়ি পুলিশ লাইন প্রাঙ্গনে বিজয়া সম্মিলনী অনুষ্ঠানে যোগ দেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। সেখানেই ওঠে এনআরসি প্রসঙ্গ। মুখ্যমন্ত্রীর কথায়, বাংলায় এনআরসি হবে না, কোনও ভাগাভাগি হবে না। তাঁর কথায়, ‘আমি যদি মনে করি, আমি মমতা ব্যানার্জি, বাংলায় শুধু ব্যানার্জি থাকবে আর কেউ থাকবে না, এটা আমি জীবনে ভাবতে পারি না। দরকার হলে আমার ব্যানার্জি থাকবে না। কিন্তু মানুষ থাকবে।’ দেশে অনুপ্রবেশ ঠেকাতে সব রাজ্যেই এনআরসি হবে বলে সম্প্রতি মন্তব্য করেছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী তা খারিজ করে বলেন, সবাই নিশ্চিন্ত থাকুন, একটি মানুষকেও বাংলা থেকে বের করা হবে না। তৃণমূল নেত্রীর কথায়, আমরা আপনাদের পাহারাদার। রাজ্যে আমাদের সরকার মানুষের সঙ্গে ছিল, আছে এবং থাকবে।

বিজয়া সম্মিলনী থেকে মমতার বার্তা, সমস্ত সম্প্রদায়, সব ধর্মের মানুষকে নিয়ে থাকতে হবে। তিনি বলেন, অসমে এনআরসি থেকে বাদ যাওয়া ১৯ লক্ষ মানুষের মধ্যে অধিকাংশ হিন্দু। ১ লক্ষ হিন্দিভাষী, ১ লক্ষ পাহাড়ি মানুষ আছেন। এনআরসিতে বাতিল হওয়া প্রচুর মানুষ রাজবংশী সম্প্রদায়ের বলেও দাবি মুখ্যমন্ত্রীর। তাঁর কথায়, কখনও হিন্দুর সঙ্গে মুসলমানের ভাগ, কখনও মুসলমানের সঙ্গে হিন্দিভাষীকে ভাগ করা হচ্ছে। বলেন, আদিবাসী, মতুয়া, নিম্ন হোক বা উচ্চ বর্ণ, হিন্দু, মুসলিম, খ্রিশ্চান সব ধর্ম ও বর্ণের মানুষের সমান অধিকার। যাঁরা ভোট দেন, তাদের সবার এ দেশে থাকার গণতান্ত্রিক অধিকার আছে। মুখ্যমন্ত্রীর কথায়, সবাইকে নিশ্চিন্ত করে দিয়ে গেলাম, বাংলায় কোনও এনআরসি হচ্ছে না।
পাশাপাশি, শিলিগুড়ির বিজয়া সম্মিলনীর অনুষ্ঠান থেকে উত্তরবঙ্গের দুর্গাপুজোর বিশেষ প্রশংসা করেন মুখ্যমন্ত্রী। বলেন শুধু কলকাতা নয়, উত্তরবঙ্গের প্রতিটি পুজোতেই তাঁর সমান নজর থাকে।

অন্যদিকে, আগামী রবিবার কালীপুজো ও ২ রা নভেম্বর ছটপুজো পড়ে যাওয়ায় দুটি সপ্তাহেই সোমবার সরকারি কর্মীদের বাড়তি ছুটি ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। বলেন, সব ধর্ম, সব সম্প্রদায় যেন সমানভাবে উৎসব পালন করতে পারেন সেটাই তাঁদের লক্ষ্য।

Comments
Loading...