TOI মালিক বিনীত জৈনের ট্যুইটের পরই জামিন রিয়ার! এ কি কাকতালীয়? কী লিখলেন সংবাদমাধ্যমের সবচেয়ে প্রভাবশালী ব্যক্তি

৭ অক্টোবর বুধবার সকাল: টাইমস অফ ইন্ডিয়া গ্রুপের ম্যানেজিং ডিরেক্টর তথা মালিক বিনীত জৈন একটা ট্যুইট করলেন। তাতে তিনি লেখেন, আসল ড্রাগ কারবারীরা ধরা পড়েও রাতারাতি জামিন পেয়ে যায়। রিয়া চক্রবর্তীর কাছ থেকে কোনও ড্রাগ মেলেনি। অথচ গত ৮ সেপ্টেম্বর থেকে তাঁকে জেলে রাখা হয়েছে। এটা দ্বিচারিতা।


৭ অক্টোবর বুধবার দুপুর: ১ লক্ষ টাকার বন্ডে রিয়ার জামিন মঞ্জুর করল বম্বে হাইকোর্ট।
হয়তো একেবারেই কাকতালীয়, কিন্তু যে রিয়া চক্রবর্তীর ক্যারেক্টার অ্যানালিসিস করে গত প্রায় এক মাস ধরে তাঁকে ভিলেন বানিয়েছে টাইমস নাউ চ্যানেল থেকে একাধিক মিডিয়া, সেখানে দেশের সংবাদমাধ্যম জগতের সবচেয়ে প্রভাবশালী ব্যক্তির এই ট্যুইট এবং তার কয়েক ঘণ্টার মধ্যে তাঁর জামিন একাধিক প্রশ্ন, জল্পনার জন্ম দিয়েছে।
গত ১৪ জুন সুশান্ত সিং রাজপুতের অস্বাভাবিক মৃত্যুর পর থেকেই রিয়া চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠতে শুরু করে। অভিযোগ ওঠে চা, কফি সহ অন্য পানীয়ের সঙ্গে মাদক মিশিয়ে সুশান্তকে দিতেন রিয়া। রিয়ার বাড়িতে তল্লাশি চালান নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো বা NCB আধিকারিকরা। তাঁর ল্যাপটপ সহ বিভিন্ন ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস বাজেয়াপ্ত করা হয়। বাজেয়াপ্ত করা ওই সব ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস থেকেই রিয়া চক্রবর্তীর সঙ্গে মাদক কারবারী এবং পাচারকারীদের সঙ্গে যোগ রয়েছে বলে খবর সম্প্রচারিত হতে শুরু করে একাধিক সংবাদমাধ্যমে। মিডিয়া ট্রায়ালের সঙ্গে সঙ্গেই অতিসক্রিয় হয়ে ওঠে NCB। গ্রেফতার করা হয় রিয়াকে।
রিয়ার গ্রেফতারির বিরুদ্ধে পরিচালক অনুভব সিংহ, অভিনেত্রী স্বরা ভাস্কর থেকে শুরু করে বহু স্বনামধন্য ও নামী মানুষ সওয়াল করেন। রিয়া চক্রবর্তীকে নিয়ে বেনজির সংঘাতে জড়িয়ে পড়ে রিপাবলিক টিভি, ইন্ডিয়া টুডের মতো বৃহৎ সংবাদমাধ্যম। টিআরপিতে এক নম্বরে উঠে আসা রিপাবলিক টিভির কর্ণধার অর্ণব গোস্বামী ও ইন্ডিয়া টুডের সিনিয়র সাংবাদিক রাজদীপ সরদেশাই এক অন্যকে আক্রমণ-প্রতি আক্রমণ করেন।

 

পড়ুন: ‘সাংবাদিকতাকে যেখানে নামিয়েছেন, আর নামাবেন না’, অর্ণবকে বেনজির আক্রমণ রাজদীপের! পিছনে কি রাজনৈতিক লড়াই

বুধবার সকালে বিনীত জৈনের ওই ট্যুইটের প্রেক্ষিতে নেটিজেনরা বিভিন্ন কমেন্ট করেন। নিউজ পোর্টাল newslaundry.com র সাংবাদিক মনীষা পাণ্ডে মন্তব্য করেন, বিনীত জৈন যে দাবিতে ট্যুইট করছেন, তাঁর নিউজ চ্যানেলের অ্যাঙ্কররা ঠিক উল্টো কথা বলছেন।
বুধবার দুপুরে রিয়ার জামিনের পর এই ঘটনায় বৃহস্পতিবারও একটি ট্যুইট করেছেন বিনীত জৈন। লিখেছেন, কিছুটা দেরিতে হলেও অবশেষে ন্যায়বিচার হল। পাশাপাশি তাঁর মত, মাদক সংক্রান্ত আইনের পর্যালোচনা প্রয়োজন। ড্রাগ ব্যবহারকারীদের জায়গা জেল নয়, রিহ্যাব হওয়া উচিত।


বিনীত ট্যুইট বৃহস্পতিবারের এই ট্যুইটের প্রতিক্রিয়ায় আগামী দিনে কী ঘটে সেদিকে নজর সংবাদমাধ্যমের।

Comments
Loading...