বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভেঙ্গেছে যারা তাদের পদলেহনকারী গদ্দার, শুভেন্দুকে তোপ অভিষেকের

এদিন চন্দ্রকোনার সভায়তেও একইভাবে বিজেপিকে আক্রমণ শানান অভিষেক

বিশ্বাসঘাতক একজন হতে পারে, মেদিনীপুরের মানুষ বিশ্বাস ঘাতকদের ক্ষমা করবে না। সোমবার পশ্চিম মেদিনীপুরের দাঁতনের সভা থেকে শুভেন্দুকে তোপ যুব তৃণমূল সভাপতি অভিষেক ব্যানার্জির। মঞ্চ থেকে তৃণমূল সাংসদের জনগণের উদ্দেশ্যে প্রশ্ন, ইভিএমের মাধ্যমে গদ্দারদের ঝেঁটিয়ে বিদায় করবেন তো? এদিনের বক্তব্যে অভিষেক ফের একবার রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের ইন্ডিয়া টুডে কনক্লেভের একটি মন্তব্য করে হাতিয়ার করে বিজেপিকে আক্রমণ করেন। অভিষেকের দাবি, দিলীপ ঘোষ মা দুর্গাকে অপমান করেছেন।
নন্দীগ্রামে ভোট প্রচারে গিয়ে মমতা আহত হন। তৃণমূল নেত্রী ইতিমধ্যেই ঘোষণা করেছেন, পায়ে প্লাস্টার নিয়েই সারা বাংলা ভোট প্রচারে যাবেন তিনি। এদিনও পুরুলিয়ায় হুইলচেয়ারে বসেই জোড়া সভা করেছেন মমতা ব্যানার্জি। সেই প্রসঙ্গ টেনে এনে অভিষেক বলেন, আপনাদের স্বার্থে ভাঙা পায়ে মমতা দিল্লিতে দরবার করতে যাবেন। বিজেপির সোনার বাংলা গড়ার প্রতিশ্রুতির জবাব দিতে গিয়ে অভিষেকের কটাক্ষ, দিলীপ ঘোষ গরুর দুধ থেকে সোনা বের করবেন আর অমিত শাহ সেই সোনা দিয়ে ‘শুনার’ বাংলা করবেন।
এদিন বক্তব্যের ছত্রে ছত্রে অভিষেক শুভেন্দুকে আক্রমণ করেন। অভিষেকের তোপ, বিদ্যাসাগরের মূর্তি যারা ভাঙল, তাদের পদলেহন করে, মেদিনীপুরের আবেগকে দিল্লিতে বিক্রি করছে মীরজাফর, বিশ্বাসঘাতক, গদ্দার। প্রসঙ্গত এই তিন নামেই ইদানীং শুভেন্দুকে আক্রমণ করছেন তৃণমূল সমর্থকেরা।

[আরও পড়ুন- সিঙ্গুরে রবীন্দ্রনাথকে হারাতে নির্দল হয়ে দাঁড়ানোর তোড়জোড় বিক্ষুব্ধদের]

ভিড়ে ঠাঁসা সভায় জনগণকে উদ্দেশ্য করে অভিষেক ব্যানার্জি বলেন, এই কাঠফাটা রোদ্দুরে যাঁরা সভায় এসেছেন তাঁরা বক্তব্য শুনতে নয়, নিজেদের সিদ্ধান্ত জানাতে এসেছেন। নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধেও এদিন একাধিক অভিযোগ শোনা যায় তাঁর গলায়।
এদিন অমিত শাহের সভার দিকেও কটাক্ষ ছুঁড়ে দেন অভিষেক। বলেন, বহিরাগতদের সর্দারের সভার যা ছবি দেখছি, তাতে মনে হচ্ছে গ্রাম বাংলায় জেসিবি দিয়ে মাটি কাটা হলেও বেশি লোক দাঁড়িয়ে দেখেন। সকালে চায়ের দোকানে এর চেয়ে বেশি লোক হয় বলেও কটাক্ষ করেন অভিষেক ব্যানার্জি।
এদিন চন্দ্রকোনার সভায়তেও একইভাবে বিজেপিকে আক্রমণ শানান অভিষেক। বলেন, বিজেপি বলছে ২০০ আসন জিতব, আমি বলি, মেদিনীপুরের ২০০ বুথে জিততে পারবেন? তারপর তাঁর কটাক্ষ, বিজেপি ক্ষমতায় এলে মেদিনীপুরের নাম পাল্টে হয়ে যাবে মোদীনিপুর। বিদ্যাসাগর সেতুর নাম বদলাবে। আপনারা চান? জনতা সমস্বরে জবাব দেয় চাই না।
শুভেন্দুকে আক্রমণ করে চন্দ্রকোনার সভা থেকে অভিষেক বলেন, বিশ্বাসঘাতকদের এমন জবাব দিন, যাতে বাড়ি থেকে বেরোতে না পারে।

Comments
Loading...