আমেরিকা হাতছাড়া হওয়ার পর এবার স্ত্রীও হাতছাড়া হলো, ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ডিভোর্স দিচ্ছেন মেলানিয়া ট্রাম্প

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রতে চলছে উৎসব। আমেরিকার রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে ডোনাল্ড ট্রাম্পকে গোল্ডেন ফিগারে হারিয়ে আগামী চার বছরের জন্য হোয়াইট হাউসে থাকবেন জো বাইডেন। এই সংবাদে রীতিমতো কষ্ট পেয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। তবে ট্রাম্প পরিবারে আসতে চলেছে আরও এক দুঃসংবাদ। শোনা যাচ্ছে, খুব শীঘ্রই ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ডিভোর্স দিতে চলেছেন স্ত্রী মেলানিয়া ট্রাম্প। ইউএস ইলেকশন হেরে যাওয়ার পরই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মেলানিয়া। হোয়াইট হাউসের এক প্রাক্তন কর্মী সূত্রে জানা গেছে, ডোনাল্ড ট্রাম্প ও মেলানিয়ার মধ্যে হয়েছিল ১৫ বছরের জন্য চুক্তির বিয়ে। সেই চুক্তি ভাঙতে চলেছেন মেলানিয়া ট্রাম্প।

সূত্রের খবর, ট্রাম্প যতদিন ক্ষমতায় ছিলেন ততদিন মেলানিয়া চেষ্টা করেও তাঁকে ডিভোর্স দিতে পারেননি। তবে এবার ট্রাম্প ইলেকশনে হেরে যাওয়াতে তাঁকে ডিভোর্স দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন তিনি। এর আগেও বহুবার ডিভোর্সের কথা তুলেছিলেন মেলানিয়া। কিন্তু তখন নিজের ক্ষমতার অপব্যবহার করে ট্রাম্প তাঁকে দমিয়ে দিতেন। এমনটাই দাবি করেছেন হোয়াইট হাউসের কমিউনিকেশনের প্রাক্তন ডিরেক্টর ওমারোসা এম নিউম্যান। আবার মেলানিয়ার এক বন্ধুর দাবী, ২০১৬ সালে ট্রাম্পের ইলেকশন জেতায় আনন্দে কেঁদে ফেলেছিলেন মেলানিয়া। তিনি কখনো ভাবতেও পারেননি তাঁর স্বামী হোয়াইট হাউসে বসবেন। তবে মেলানিয়ার প্রাক্তন উপদেষ্টার কথা অনুযায়ী, ট্রাম্প ও মেলানিয়ার বিয়েটা একটি চুক্তির বিয়ে।

প্রসঙ্গত, এই বিষয়ে জনসমক্ষে এখনও কোনো মন্তব্য করেননি মেলানিয়া। বরং সকল গুঞ্জনের বিপরীতে মেলানিয়া জানিয়েছেন, তাঁর ও ট্রাম্পের মধ্যে সম্পর্ক খুবই ভালো। তাঁদের মধ্যে কোনদিন কোন প্রকার ঝগড়া হয় না। তবে ট্রাম্পের দ্বিতীয় চুক্তি বিয়ের স্ত্রী মারলা ম্যাপেলস, জনসমক্ষে এই চুক্তির সম্পর্কে কোন মন্তব্য করা বারণ। আর সেই কারণেই কি এতদিন মুখ বন্ধ রেখেছিলেন মেলানিয়াও?

Comments
Loading...