মিশনারিজ অফ চ্যারিটির ঝাড়খন্ড শাখার বিরুদ্ধে শিশু বিক্রির অভিযোগ। আটক এক নান, গ্রেফতার মহিলা কর্মী।

মাদার টেরিজার মিশনারিজ অফ চ্যারিটির ঝাড়খন্ড শাখা থেকে শিশু বিক্রির অভিযোগ উঠল। শিশু বিক্রির অভিযোগে আটক করা হয়েছে ঝাড়খন্ডের মিশনারিজ অফ চ্যারিটির ওই শাখার এক সন্ন্যাসিনীকে (নান)। সূত্রের খবর, ইতিমধ্যেই ওই শাখার এক মহিলা কর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আটক নানকে জেরা করা হচ্ছে। ভারতীয় দন্ডবিধির ৩৭০ ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে। ৪০ হাজার থেকে এক লক্ষ টাকায় বিক্রি করা হত শিশুদের, এমনটাই অভিযোগ। মিশনারিজ অফ চ্যারিটির ঝাড়খন্ডের ওই শাখাটিতে আশ্রয় পেতেন অনেক কুমারী মা। তাঁদের সন্তানকে মোটা অর্থের বিনিময়ে বিক্রি করা হোত কিনা এখন তা তদন্ত করে দেখছে ঝাড়খন্ড পুলিশ।
শিশু পাচারের অভিযোগে মিশনারিজ অফ চ্যারিটির ঝাড়খন্ড শাখার এই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে দেশজুড়ে। ঝাড়খন্ডের পুলিশ আধিকারিক আমন কুমার সংবাদসংস্থাকে জানিয়েছেন, তাঁদের আশঙ্কা বিগত কয়েক দিনের মধ্যে কম পক্ষে পাঁচ থেকে ছ’টি শিশুকে সন্তানহীন দম্পতিদের কাছে বিক্রি করা হয়েছে। ওই অফিসার আরও দাবি করেছেন, মিশনারিজ অফ চ্যারিটির এই শাখাটির কার্যকলাপ নিয়ে প্রায় ছ’মাস ধরে নানা অভিযোগ আসছিল। পুলিশ গোপনে নজরদারিও চালাচ্ছিল ঝাড়খন্ডের জেল রোডের ওই শাখার ওপর। ঝাড়খন্ডের শিশু অধিকার রক্ষা কমিটিও শিশু পাচারের অভিযোগ দায়ের করেছে।
কলকাতায় মিশনারিজ অফ চ্যারিটির মুখপাত্র সুনীতা কুমারী thebengalstory.com কে জানান, মাদার টেরিজার নিজের হাতে গড়ে তোলা এই সংস্থার বিরুদ্ধে শিশু বিক্রির যে অভিযোগ উঠে আসছে তাতে তাঁরা অত্যন্ত মর্মাহত। কিন্তু আইন, আইনের পথে চলুক। পুলিশি তদন্তে তাঁরা কোনও হস্তক্ষেপ করতে চান না। সুনীতা কুমারী আরও জানান, দেশ-বিদেশ মিলিয়ে তাঁদের প্রায় তিন হাজার শাখা রয়েছে, কিন্তু এই ধরনের অভিযোগ প্রথম। খ্রিষ্টান বডি ক্যাথলিক বিশপ কনফারেন্স অফ ইন্ডিয়ার (সিবিসিআই) পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, মিশনারিজ অফ চ্যারিটির ঝাড়খন্ড শাখার বিরুদ্ধে শিশু পাচারের অভিযোগ ওঠায় তাঁরাও হতবাক। তবে সিবিসিআই চায় যত দ্রুত সম্ভব সত্য ঘটনা প্রকাশ্যে আসুক।

Comments
Loading...