বিধানসভায় শুভেন্দু অধিকারীর দিকে তেড়ে গেলেন কংগ্রেস বিধায়ক, হাতাহাতি রুখলেন মুখ্যমন্ত্রী

পরিবহণ মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর দিকে তেড়ে গেলেন কংগ্রেস বিধায়করা, বিধানসভায় প্রশ্নোত্তর পর্বে নজিরবিহীন গণ্ডগোলে জড়ালেন তৃণমূল ও কংগ্রেস বিধায়করা। হাতাহাতি রুখতে আসন ছেড়ে ওয়েলে নেমে আসতে হয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে।
শুক্রবার নজিরবিহীন পরিস্থিতির সাক্ষী হল বিধানসভা। কংগ্রেস বিধায়ক প্রতিমা রজকের প্রশ্নে মেজাজ হারালেন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী, তাঁর কটাক্ষের জবাবে রীতিমতো তেড়ে গেলেন কংগ্রেস বিধায়করা। এদিন দুর্নীতি প্রসঙ্গে পরিবহণ মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীকে একটি প্রশ্ন করেন কংগ্রেস বিধায়ক প্রতিমা রজক। প্রতিক্রিয়ায় মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী বলেন কংগ্রেস বিধায়ককে অভিযোগের প্রমাণ দিতে হবে, না হলে ক্ষমা চাইতে হবে। সেই সঙ্গে শুভেন্দু অধিকারী মন্তব্য করেন, আগামী দিনে মুর্শিদাবাদের বাকি বিধায়করাও তৃণমূলে চলে আসবেন। কংগ্রেস বিধায়কদের দাবি, প্রথমত, বিধানসভায় কোনও বিধায়ক ক্ষমা চাইবেন, কি চাইবেন না তা নিয়ে বলার এক্তিয়ার মন্ত্রীর নেই এবং কেন তিনি কংগ্রেস বিধায়কদের নিয়ে এরকম মন্তব্য করলেন, তার জবাব জানার জন্য ওয়েলে নেমে বিক্ষোভ শুরু করেন। সেইসময় কংগ্রেস বিধায়ক কমলেশ চট্টোপাধ্যায় মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর দিকে তেড়ে গেলে পাল্টা তৃণমূল বিধায়করাও ওয়েলে নেমে আসেন। পরিস্থিতি এমন জায়গায় পৌঁছয় যে নিজের আসন ছেড়ে উঠে আসতে হয় মুখ্যমন্ত্রীকে। শাসক-বিরোধী বিধায়কদের মধ্যে হাতাহাতি রুখতে ওয়েলে নেমে দলীয় বিধায়কদের ধমক দিয়ে নিজের আসনে ফেরত যেতে বলেন মমতা। সেই সঙ্গে বিরোধী বিধায়কদের অনুরোধ করেন নিজের আসনে ফিরে যেতে। এরপর বিধানসভার অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় রুলিং দেন, বিধায়ক ও মন্ত্রী উভয়কেই প্রশ্নোত্তর পর্বে সংযত এবং সতর্ক থাকতে হবে। মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর মন্তব্য বিধানসভার কার্য বিবরণী থেকে বাদ দেওয়া হয়।

Comments
Loading...