এবার বিশ্বের দরবারে স্বীকৃতি পেল উৎকর্ষ বাংলা ও সবুজ সাথী প্রকল্প

বিশ্বের দরবারে স্বীকৃতি পেল তৃণমূল সরকারের ‘উৎকর্ষ বাংলা’ ও ‘সবুজ সাথী’ প্রকল্প। বৃহস্পতিবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেই এই খবর জানালেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। ফেসবুকে মুখ্যমন্ত্রী লেখেন, তিনি অত্যন্ত আনন্দিত যে, ‘উৎকর্ষ বাংলা’ ও ‘সবুজ সাথী’ প্রকল্প রাষ্ট্র সংঘের স্বীকৃতি পেয়েছে।
ফেসবুক পোস্টে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় লেখেন, ১৮ টি বিভাগে ১০৬২ টি মনোনয়নের মধ্যে,’ক্যাপাসিটি বিল্ডিং’ বা ‘দক্ষতা বৃদ্ধি’ বিভাগে প্রথম হয়েছে ‘উৎকর্ষ বাংলা’। পাশাপাশি, সবুজ সাথী প্রকল্পও সরকারি প্রকল্পগুলির মধ্যে প্রথম পাঁচে জায়গা করে নিয়েছে।
পশ্চিমবঙ্গের বেকার যুবক-যুবতীদের দক্ষতা বৃদ্ধির মাধ্যমে কর্মসংস্থানের লক্ষ্যে ২০১৬ সালের ১৬ই ফেব্রুয়ারি ‘উৎকর্ষ বাংলা’ প্রকল্পটি চালু হয়। এই প্রকল্পের দেখভালের দায়িত্ব দেওয়া হয় পশ্চিমবঙ্গ সোসাইটি ফর স্কিল ডেভেলপমেন্টকে (পিবিএসএসডি)। উৎকর্ষ বাংলা প্রকল্পের সঙ্গে ভারতের পাঁচশোরও বেশি সংস্থা ও প্রতিষ্ঠান যুক্ত রয়েছে। ২০১৮ সালে এই প্রকল্পের মাধ্যমে ৭ হাজার ৫০০ জন যুবক-যুবতী প্রশিক্ষণ নিয়ে চাকরি পেয়েছেন বলে সরকারি সূত্রে খবর। অন্যদিকে, নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রছাত্রীদের ‘সবুজ সাথী’ প্রকল্পের মাধ্যমে সাইকেল বিলি করে রাজ্য সরকার। দুটি প্রকল্পই রাষ্ট্র সংঘে সমাদৃত হওয়ায় উচ্ছ্বসিত মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
সেই সূত্র ধরে ফেসবুক পোস্টে রাজ্যবাসীকে শুভেচ্ছা জানিয়ে মুখ্যমন্ত্রী লেখেন, দুটি প্রকল্পই নতুন প্রজন্মের কথা চিন্তা করে আনা হয়েছে। ‘উৎকর্ষ বাংলা’র মাধ্যমে প্রতি বছর ৬ লক্ষ বেকার যুবক-যুবতীকে চাকরির জন্য প্রস্তুত করা হয় বলে দাবি করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। আর ‘সবুজ সাথী’ প্রকল্প চালু হওয়ার পর থেকে এপর্যন্ত রাজ্যের ১ কোটি ছাত্রছাত্রীকে বাই-সাইকেল দেওয়া হয়েছে বলে উল্লেখ করেন মুখ্যমন্ত্রী।
Comments
Loading...