৩ লাখের বেশি ভোটে জিতবে তৃণমূল, বিজেপির ক্রিমিনাল প্রার্থীকে প্রত্যাখান করেছেন কোচবিহারের মানুষঃ রবীন্দ্রনাথ ঘোষ

প্রথম দফার ভোটে বৃহস্পতিবার, ১১ ই এপ্রিল সকাল থেকেই উত্তেজনা ছিল কোচবিহারের কিছু এলাকায়। যে উত্তেজনা শুরু হয়েছিল প্রাক্তন তৃণমূল নেতা নিশীথ প্রামাণিককে বিজেপি প্রার্থী করার পর থেকেই। তৃণমূলের অভিযোগ, একাধিক অপরাধের সঙ্গে যুক্ত নিশীথকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়। বিজেপি বেছে বেছে তৃণমূলের বাজে লোকগুলোকে দলে নিচ্ছে। পাশাপাশি, বিজেপির বক্তব্য ছিল, বিজেপিতে যোগ দেওয়ার জন্যই নিশীথ প্রামাণিকের বিরুদ্ধে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে মামলা করেছে পুলিশ।
ভোটের পর কী বলছেন কোচবিহারের তৃণমূল নেতা এবং উত্তরবঙ্গ উন্নয়নমন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ।

প্রশ্নঃ কোচবিহারে রেজাল্ট কী হবে?

রবীন্দ্রনাথ ঘোষঃ কী আবার হবে, ৩ লাখের বেশি ভোটে তৃণমূল জিতবে। নির্বাচন কমিশন বাড়াবাড়ি করেছে, কেন্দ্রীয় বাহিনী বিজেপির হয়ে কাজ করেছে, তাও ৩ লাখের বেশি ভোটে জিতবে তৃণমূল। জেলার মানুষ আমাদের সঙ্গে আছেন। তাছাড়া বিজেপির ক্রিমিনাল প্রার্থীকেও প্রত্যাখান করেছেন এখানকার মানুষ।

প্রশ্নঃ ভোট মিটে যাওয়ার পর আপনি একথা বলছেন, কিন্তু ভোটের শুরুতেই আপনি চক্রান্তের অভিযোগ তুলছিলেন।

রবীন্দ্রনাথ ঘোষঃ তা তো এখনও বলছি। আমি এতদিন রাজনীতি করছি, ভোট করছি। জীবনে দেখিনি একটা কেন্দ্রে এত মেশিন খারাপ। ৫০-৬০ টা মেশিন সকাল সকাল খারাপ। কত মানুষ দাঁড়িয়ে থেকে ফিরে গেলেন, এটাও একটা চক্রান্ত। যেখানে আমাদের ৫০০-৬০০ ভোটের লিড হবে এমন বুথে মেশিন খারাপ। তাছাড়া, কেন্দ্রীয় বাহিনী তো লোককে ডেকে ডেকে বলেছে বিজেপিকে ভোট দিতে। এখানে সবাই দেখেছে।

প্রশ্নঃ এর পরেও বলছেন ৩ লাখের বেশি ভোটে জিতবেন?

রবীন্দ্রনাথ ঘোষঃ অবশ্যই। কোচবিহার সহ পুরো উত্তরবঙ্গে যা কাজ হয়েছে, তা এখানকার মানুষ কোনও দিন দেখেননি। একদম কোচবিহার থেকে মালদহ পর্যন্ত। তারপর বিজেপি একটা ভাল প্রার্থী দিলে তাও না হয় কিছু বেশি ভোট পেত।

প্রশ্নঃ বিজেপি আপনাদের বিরুদ্ধে বুথ দখল, ছাপ্পার অভিযোগ করছে। পুনর্নির্বাচন দাবি করছে।

রবীন্দ্রনাথ ঘোষঃ সকাল থেকে তো করেনি। বরং আমরাই তো সকাল থেকে অভিযোগ করেছি কমিশনের, কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে। মানুষ সঙ্গে নেই বুঝে গিয়ে এখন এই সব ফালতু অভিযোগ করছে।

Comments
Loading...