যোধপুর পার্কে দিলীপের চায়ে পে চর্চায় লাকি ড্র! লোক নেই তাই পুরস্কারের টোপ, কটাক্ষ তৃণমূলের

আগেরবার বাল্ব দিলেও এবারে কি দেওয়া হয়েছে জানা যায়নি

 

তৃণমূলের দিদিকে বলো কর্মসূচির পালটা হিসেবে রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ জনসংযোগ বাড়াতে শুরু করেছিলেন চা চক্র। যা বিজেপি নেতাদের কাছে চায়ে পে চর্চা বলেই পরিচিত। এবার সেই চা চক্রে যোগদানকারীদের হাতে লাকি ড্রয়ের মাধ্যমে পুরস্কার তুলে দিল বিজেপি। ভোটের মুখে বিজেপির এই উদ্যোগ যেমন সাড়া ফেলেছে তেমনই কটাক্ষের মুখেও পড়তে হচ্ছে দিলীপ-মুকুল-শুভেন্দুদের।

বুধবার যোধপুর পার্কে দিলীপ ঘোষের চা চক্র কর্মসূচিতে দেখা গেল সাধারণ মানুষ ও দলীয় কর্মীদের মধ্যে কুপন বিলি করা হচ্ছে। লাকি ড্রয়ের মাধ্যমে আকর্ষণীয় পুরস্কার দেওয়া হয়।
কিন্তু রাজনৈতিক সভায় কুপন বিলি কেন? এনিয়ে কটাক্ষ করেছেন তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ। তাঁর খোঁচা, ওদের চা চক্র, রাজনৈতিক সভায় কোথাও ভিড় হচ্ছে না। তাই লাকি ড্রয়ের টোপ দিয়ে লোক ডেকে আনছে। সার্কাস চলছে!
এই প্রথম নয়। এর আগে পশ্চিম মেদিনীপুরে বিজেপির চা চক্র অনুষ্ঠানে যাঁরা এসেছিলেন, তাঁদের একটি করে LED বাল্ব দিয়েছিল বিজেপি।

[আরও পড়ুন-দিদিকে জেতানোই একমাত্র লক্ষ্য, জাতীয় মুখপাত্রের দায়িত্ব পেয়ে বলছেন বিজেপি প্রত্যাখ্যাত জিতেন্দ্র]

খড়গপুর গ্রামীণের হরিয়াতাড়ায় সেই চা চক্র অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা। দিলীপ ঘোষের পাশাপাশি স্বয়ং জেপি নাড্ডাকে দেখা গিয়েছিল সাধারণ মানুষের হাতে বাল্ব তুলে দিতে। বিনা পয়সায় এলইডি বাল্ব নিতে হুড়োহুড়ি পড়ে যায় গ্রামবাসীদের মধ্যে। বাল্বের প্যাকেটে পদ্মফুলের পাশাপাশি হাসিমুখে দিলীপ ঘোষের ছবিও ছিল। এবার খাস কলকাতার যোধপুর পার্কে চায়ে পে চর্চায় কুপন বিলি করে নজর কাড়লেন দিলীপ ঘোষরা। সুদৃশ্য প্যাকেটে কী আছে? তা জানা না গেলেও পশ্চিম মেদিনীপুরে দেওয়া হয়েছিল বাল্ব।
ভোটমুখী বাংলায় জনতার মন পেতে একাধিক কর্মসূচি করছে রাজনৈতিক দলগুলি। নিত্য নতুন চমকও দেখা যাচ্ছে। অনেকেই বলছেন, এক সময় ভোটের আগে মাংস-ভাত খাওয়ানোর চল ছিল। ভোটের বাংলায় গেরুয়া ব্রিগেডের হাত ধরে তাই ফিরে এসেছে বাল্ব কিংবা পুরস্কার হয়ে।

Comments
Loading...