ব্রিগেডে ২৮ ফেব্রুয়ারি বাম-কংগ্রেস, ৭ মার্চ মোদী, ভোট মুখী বঙ্গে শক্তি পরীক্ষায় বিরোধীরা

বাংলা তুমি কার? বাংলাকে পাখির চোখ করে ঝাঁপিয়ে পড়েছে গেরুয়া শিবির। অন্যদিকে সব হিসেব ওলটপালট করার আশা নিয়ে কোমর বেঁধে নেমেছে বাম-কংগ্রেসও। এই পরিস্থিতিতে বিরোধীদের শক্তি পরীক্ষার সিট পড়েছে ব্রিগেড প্যারেড গ্রাউন্ডে। ফেব্রুয়ারির শেষ রবিবার অর্থাৎ ২৮ তারিখ ব্রিগেডে জমায়েত বাম-কংগ্রেসের। তার ঠিক পরের রবিবার, ৭ মার্চ ব্রিগেডে নরেন্দ্র মোদীর সভা। কে কাকে টেক্কা দেবে?
শাসক তৃণমূল অবশ্য বড়ো সভার পথে যাচ্ছে না। তৃণমূল নেতৃত্বের দাবি, মমতা গোটা রাজ্যে ঘুরে ঘুরে সভা করছেন। তাই আলাদা করে ব্রিগেডের প্রয়োজন কি?

বামেরা প্রায় প্রতি বছরই ব্রিগেডে সমাবেশ করে। প্রতিবারই তাতে প্রচুর লোক হয়। এবার বামেরদের সঙ্গেই রয়েছে কংগ্রেস। স্বভাবতই ফেব্রুয়ারির শেষ দিন জন প্লাবনের আশা করছে আলিমুদ্দিন স্ট্রিট এবং বিধান ভবন।

অন্যদিকে ব্রিগেড চেনেন নরেন্দ্র মোদীও। এর আগে তিনি একাধিক সভা করেছেন কলকাতার ব্রিগেডে। এবার ৭ মার্চ ফের তিনি আসছেন ব্রিগেডে। বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ দাবি করেছেন, ৭ তারিখ ১৫ লক্ষ মানুষের জমায়েত করবেন তাঁরা। মোদীর সভা থেকেই রাজ্যে পরিবর্তনের সূচনা হবে বলেও দাবি করেছিলেন দিলীপ ঘোষ।

[আরও পড়ুন- অভিষেকের দায়ের করা মামলায় অমিত শাহকে সমন আদালতের, সোমবার হাজিরার নির্দেশ]

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে এর আগে ব্রিগেডে মোদীর সভায় তেমন লোক আনতে পারেনি রাজ্য সংগঠন। সেই তুলনায় জনসমাগমের নিরিখে বামেদের ব্রিগেড অনেকটাই এগিয়ে। কিন্তু সর্বশেষ লোকসভার ফল বলছে ব্রিগেড ভরালেও বামেদের ভোট বাক্স ছিল ফাঁকাই। উলটোদিকে ফাঁকা ব্রিগেডে সভা করলেও ভোট বাক্স উপচে পড়েছিল বিজেপির। অর্থাৎ, সভা সমিতিতে জনসমাগম সাধারণত ভোটের নির্ণায়ক হয় না। কিন্তু তবুও ব্রিগেডের মহিমা অটুট।

জানা গিয়েছে, মার্চ মাসে কলকাতায় এসে শেষ হচ্ছে বিজেপির পরিবর্তন যাত্রা। মার্চের ৭ তারিখে ব্রিগেডে শোভা পাবে পরিবর্তন যাত্রার ৫ টি রথ। পরিবর্তন যাত্রার সমাপ্তি অনুষ্ঠানে মোদীকে হাজির করিয়ে বাংলার বুকে ব্রিগেড সভা ডেকেছে বিজেপি। বিজেপি নেতাদের টার্গেট মাঠ ভরানো। সমাবেশের আগেই রাজ্যের প্রায় সব জেলা থেকে কলকাতা পৌঁছে যাবেন নেতা কর্মীরা। বঙ্গ বিজেপির নেতাদের দাবি, ভিড়ের নিরিখে এবার অনেক হিসেবই পাল্টে যাবে। গেরুয়া ঝড় উঠছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

অন্যদিকে বিজেপির ঠিক আগের রবিবার ব্রিগেডে বামেদের সমাবেশ। ২৮ ফেব্রুয়ারি ব্রিগেডের জন্য ইতিমধ্যেই রাজ্যে শুরু হয়ে গিয়েছে প্রস্তুতি সভা। বর্ধমান থেকে বেলঘরিয়া, কোচবিহার থেকে ক্যানিং, দফায় দফায় সভা করছেন বাম ও কংগ্রেস নেতৃত্ব। সমান ভাবে প্রচার চলছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

বাম নেতারা মনে করছেন, এবার অন্যান্যবারের চেয়েও বেশি মানুষ আসবেন ব্রিগেডে। আর বিজেপির দাবি, বামেদের সমাবেশকে বলে বলে ১০ গোল দেবে মোদীর সভা। তাঁরা বলছেন, জন সমাগমে এবার নতুন রেকর্ড গড়তে চলেছে রাজ্য বিজেপি। আর সেখান থেকেই শুরু হবে বাংলার পরিবর্তনের পরিবর্তন। সবমিলিয়ে ভোটের বাংলায় স্বমহিমায় ব্রিগেড।

 

Comments
Loading...