কৃষক বন্ধু না পিএম কিষাণ সম্মান নিধি, এগিয়ে কে? পরিসংখ্যান তুলে ধরে করে ট্যুইট ডেরেকের 

গেরুয়া শিবিরের অভিযোগ, পিএম কিষাণ সম্মান নিধি রাজ্যে চালু না করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি বাংলার কৃষকদের বঞ্চিত করছেন। রবিবার হলদায়ার সভা থেকেও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ফের এই অভিযোগে সরব হন। এবার বিজেপির অভিযোগের জবাব দিলেন তৃণমূলের রাজ্যসভার সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন। সোমবার তিনি রাজ্য সরকারের প্রকল্প কৃষক বন্ধু ও কেন্দ্রীয় সরকারের প্রকল্প পিএম কিষাণ সম্মান নিধির তুলনা করে একটি তালিকার ছবি ট্যুইট করেন।

ওই তালিকায় তৃণমূল সাংসদ দাবি করেন কৃষক বন্ধু প্রকল্পে একর প্রতি ৬০০০ টাকা করে দেওয়া হয় চাষিদের, যেখানে পিএম কিষাণ নিধি অনুযায়ী কৃষকরা ১,২১৪ টাকা একর প্রতি পেয়ে থাকেন। রাজ্য সরকারের এই প্রকল্প  রাজ্যের সমস্ত কৃষকদের জন্য হলেও কেন্দ্রের প্রকল্প শুধু মাত্র ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক চাষিদের জন্য যাদের ২ হেক্টরের কম জমি আছে। 

[আরও পড়ুন-  বাম-কংগ্রেস জোট: ২৩০ আসনে বোঝাপড়া শেষ, আব্বাসকে সঙ্গে রাখতে উদ্যোগ বিমান বসুর]

এর পাশাপাশি তৃণমূল সাংসদ দাবি করেন কৃষক বন্ধু প্রকল্পে কোনও  কৃষকের মৃত্যু ঘটলে তাঁর পরিবারকে দু’লক্ষ টাকা দেওয়া হয়, পিএম কিষাণ নিধিতে এমন কোনো সুবিধা নেই। 

তালিকা অনুযায়ী, আট মাসের মধ্যে ৯৪% কৃষক ইতিমধ্যেই রাজ্য সরকারের প্রকল্পের সুবিধা পেয়েছেন, যেখানে পিএম কিষাণ নিধির সুবিধা ৪৮% কৃষক এখনও পাননি।  

এছাড়াও রাজ্য সরকারের প্রকল্পটি অনুযায়ী শস্য বীমার প্রিমিয়াম রাজ্য সরকারের তরফে দেওয়া হয়ে থাকে, অথচ কিষাণ নিধিতে শস্য বীমার প্রিমিয়াম কৃষকে দিতে হয়। এছাড়াও তৃণমূল সাংসদ দাবি করেন ২০১১ তে রাজ্যের কৃষকদের রোজগার ছিল ৯০,০০০ টাকা, সেখানে ২০২১ এ তা তিন গুন্ বেড়ে হয়েছে ২ লক্ষ ৯০ হাজার। অন্যদিকে কেন্দ্রীয় সরকার ২০২২ এ কৃষকদের রোজগার দ্বিগুন হবে বলে দাবি করলেও বর্তমান গ্রোথ রেট অনুযায়ী ২০২৮ সালেও কেন্দ্রের দাবির বাস্তবায়ন  ঘটবে না।  

ডেরেক ও’ব্রায়েন  ট্যুইটে প্রধান মন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে কটাক্ষ করে লেখেন তিনি (নরেন্দ্র মোদী ) ভাষণ দিয়েছেন, কিন্তু মমতা ব্যানার্জি কাজ করে দেখিয়েছেন।                           

Comments
Loading...