নির্বাচন কমিশন-রাজ্য সংঘাত তুঙ্গেঃ মমতার চিঠির জবাব দিয়ে কমিশন জানাল, রাজ্যের অভিযোগ দুর্ভাগ্যজনক

আইপিএস অফিসারদের অপসারণের ঘটনাকে কেন্দ্র করে নয়া মাত্রা পেল রাজ্য-নির্বাচন কমিশন সংঘাত।
মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তোলা পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ খারিজ করল নির্বাচন কমিশন। রাজ্যের সিপি ও এসপি বদলিতে ক্ষুব্ধ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নির্বাচন কমিশনকে চিঠি দিয়ে উষ্মা প্রকাশ করেছিলেন শনিবার। তিনি রাজ্যের চার পুলিশ অফিসারের বদলিকে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছিলেন। তাঁর অভিযোগের ভিত্তিতে রবিবার প্রতিক্রিয়া দিল কমিশন।
জবাবে নির্বাচন কমিশন চিঠিতে জানিয়েছে, কেন্দ্রীয় সরকারের কথায় কমিশন চলছে, মুখ্যমন্ত্রীর এই বক্তব্য দুর্ভাগ্যজনক। কমিশনের দাবি, চার পুলিশ কর্তার পরিবর্তে নতুন যাঁদের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে, তাঁদের যোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তোলা অবান্তর। রাজ্যের বাস্তব পরিস্থিতি সম্পর্কে ওই পুলিশ অফিসারেরা ওয়াকিবহাল এবং তাঁরা পশ্চিমবঙ্গেরই ক্যাডার। তাই কমিশনের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ তুলছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী, তা দুর্ভাগ্যজনক বলে মন্তব্য করেছে নির্বাচন কমিশন। পাশাপাশি, মুখ্যমন্ত্রীকে দেওয়া চিঠিতে ডেপুটি নির্বাচন কমিশনার চন্দ্রভূষণ কুমার আরও জানান, আশা করা যাচ্ছে, অবাধ নির্বাচনের স্বার্থে কমিশনের নির্দেশ পুরোপুরি মেনে চলবে রাজ্য সরকার।
কলকাতা ও বিধাননগরের পুলিস কমিশনার সহ রাজ্যের চার পুলিস অফিসারকে সরিয়ে দেওয়া হয় শুক্রবার রাতে। পশ্চিমবঙ্গের দায়িত্বে থাকা ডেপুটি নির্বাচন কমিশনার ও বিশেষ পুলিশ পর্যবেক্ষকের থেকে পাওয়া রিপোর্ট অনুযায়ী রাজ্যের চার পুলিশ অফিসারকে বদলির সিদ্ধান্ত বলেই জানায় কমিশন।
কিন্তু কমিশনের এই সিদ্ধান্তে ক্ষোভে প্রকাশ করেন মুখ্যমন্ত্রী। কমিশন বিজেপির কথায় চলছে বলে অভিযোগ করেন তিনি। রাজ্যের থেকে আগাম কোনও অফিসারের তালিকা না চেয়েই কমিশনের এই বদলির সিদ্ধান্তকে উদ্দেশ্যেপ্রণোদিত বলেও অভিযোগ করেন মুখ্যমন্ত্রী। রবিবার তারই জবাবে মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগ অস্বীকার করে একটি তিন পাতার চিঠিতে জবাব দেয় নির্বাচন কমিশন।

Comments
Loading...