মুখ ফাটলো অর্জুনের, লকেটের বিরুদ্ধে এফআইআর, মার খেলেন প্রসূন, বিক্ষিপ্ত গণ্ডগোল পঞ্চম দফার ভোটে

রাজ্যে বিক্ষিপ্ত অশান্তির মধ্যে শেষ হল পঞ্চম দফার নির্বাচন। সোমবার রাজ্যের ৭ কেন্দ্রে ভোটগ্রহণে ছোটখাটো ঝামেলা হলেও, হতাহত বা বড় ধরনের কোনও অশান্তির ঘটনা ঘটেনি।
সোমবার ভোট শুরুতেই বারাকপুর কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী অর্জুন সিংহের সঙ্গে ঝামেলা হয় পুলিশের। বারাকপুরের মোহনপুরের বুথে পুলিশের সঙ্গে হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়েন অর্জুন সিংহ। ঠোঁট ফেটে যায় তাঁর। সদ্য তৃণমূল ত্যাগী বিজেপি প্রার্থী অর্জুন সিংহ অবশ্য তৃণমূলের লোকজনের বিরুদ্ধে গুণ্ডামির অভিযোগ আনেন। সোমবার কার্যত নিজের কেন্দ্রের এক বুথ থেকে অন্য বুথে চষে বেড়ালেন অর্জুন। কখনও বহিরাগতদের তাড়া করতে গিয়ে মাটিতে পড়লেন, তো কখনও আমডাঙার তেঁতুলিয়ায় তৃণমূল কর্মীদের বিক্ষোভের মুখে পড়লেন বারাকপুর কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী। দিনের শেষে অবশ্য বারাকপুর কেন্দ্রে পুনর্নির্বাচনের দাবি তুলল বিজেপি।
অন্যদিকে, হুগলির বিজেপি প্রার্থী লকেট চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করার নির্দেশ দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। তাঁর উপস্থিতিতে দলের অনুগামীরা ধনেখালির ১৬৯ নম্বর বুথে ঢুকে ইভিএম ভেঙে দেয় বলে অভিযোগ। লকেটের পাল্টা অভিযোগ প্রিসাইডিং অফিসারদের হাত করেছে তৃণমূল। স্বচ্ছ ভোট হয়নি বলে সাধারণ মানুষই রাগে ইভিএম ভেঙেছেন। শ্রীরামপুরের জগদীশপুরে তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষের খবর পাওয়া গিয়েছে। সেখানেও ঝামেলায় মুখ ফেটেছে বিজেপি প্রার্থী দেবজিৎ সরকারের সহকারীর। হাওড়ার বালিটিকুরির এক ভোট কেন্দ্রে তৃণমূল প্রার্থী প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়কে মারধর করা হয়েছে বলে কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠল। কেন্দ্রীয় বাহিনীর পাল্টা দাবি, পরিচয়পত্র না দেখিয়ে বুথে ঢোকায় তৃণমূল প্রার্থীকে বের করে দেওয়া হয়েছে। ঘটনার রিপোর্ট চেয়েছে নির্বাচন কমিশন।
বনগাঁর হিংলিতে বিজেপির বিরুদ্ধে ব্যাপক বোমাবাজির অভিযোগ করল তৃণমূল। সব মিলিয়ে বিক্ষিপ্ত অশান্তির মধ্যে শেষ হল বনগাঁ, বারাকপুর, হাওড়া, উলুবেড়িয়া, শ্রীরামপুর, হুগলি ও আরামবাগ লোকসভা কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ। কমিশনের হিসেব অনুযায়ী বিকেল ৪ টে পর্যন্ত রাজ্যে ভোটদানের হার ৬৩.৫৭ শতাংশ।

Comments
Loading...