উত্তর দিনাজপুরের হেমতাবাদের বিধায়ক দেবেন্দ্রনাথ রায় আত্মহত্যাই করেছেন বলে জানাল ময়না তদন্ত রিপোর্ট। সোমবার সকালে নিজের বাড়ি থেকে ১ কিলোমিটার দূরে একটি বন্ধ দোকানের বারান্দা থেকে দেবেন্দ্রনাথ রায়ের ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার হয়। তাঁকে খুন করা হয়েছে বলে অভিযোগ করে পরিবার। খুনের অভিযোগ তুলেছিল বিজেপিও। সোমবারই মৃত বিধায়কের ময়না তদন্ত হয়।
ময়না তদন্ত রিপোর্ট জানাচ্ছে, মৃত্যুর কারণ antemortem in nature, অর্থাৎ, গলায় ফাঁস লাগিয়ে তিনি আত্মহত্যা করেছেন। শরীরে অন্য কোনও ক্ষতচিহ্ন নেই। কেমিক্যাল পরীক্ষার পর বিস্তারিত তথ্য জানা যাবে।

সোমবার বিধায়ক দেবেন্দ্রনাথ রায়ের অস্বাভাবিক মৃত্যুর পর রাজনৈতিক টানাপোড়েন শুরু হয়। তদন্তের দায়িত্ব নেয় সিআইডি, যদিও সিবিআই তদন্তের দাবি জানিয়েছে বিজেপি। ময়না তদন্ত রিপোর্টে মৃত্যুর কারণ আত্মহত্যা বলে জানানো হল। পাশাপাশি, কেন তিনি আত্মহত্যা করেছেন তাও খতিয়ে দেখছে পুলিশ। মৃতের পকেটে সুইসাইড নোট মিলেছে এবং তাতে দু’জনের নাম রয়েছে বলে জানা গিয়েছে। এ ব্যাপারে তদন্ত চলছে।
ময়না তদন্ত রিপোর্টকে হাতিয়ার করে বিজেপিকে নিশানা করেছেন তৃণমূল সাংসদ দেড়েক ও’ব্রায়েন। খোদ বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি ভুয়ো খবর ছড়িয়েছেন বলে অভিযোগ তুলে দেড়েক জানিয়েছেন, প্রত্যেক মৃত্যুই দুঃখজনক, কিন্তু মৃতের পরিবারের পাশে না দাঁড়িয়ে বিজেপি এবং তাদের আইটি সেল ভুয়ো খবর ছড়াতে ব্যস্ত।
২০১৬ সালে দেবেন্দ্রনাথ রায় সিপিএম প্রার্থী হিসেবে হেমতাবাদ আসনে জয়লাভ করেন। কিন্তু বছরখানেক আগে বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন। তাঁর এই অস্বাভাবিক মৃত্যুর সঙ্গে রাজনীতি বা দলবদলের সম্পর্ক আছে কিনা তাও তদন্ত করে দেখছে পুলিশ।

ধারাবাহিকভাবে পাশে থাকার জন্য The Bengal Story র পাঠকদের ধন্যবাদ। আমরা যে ধরনের খবর করি, তা আরও ভালোভাবে করতে আপনাদের সাহায্য আমাদের উৎসাহিত করবে।

Login Support us

You may also like

Mobile Market in Kolkata