অবশেষে মুম্বইয়ের জে জে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হল কবি, মানবাধিকার কর্মী ভারাভারা রাওকে, চলছে শারীরিক পরীক্ষা

এলগার পরিষদ মামলায় জেলবন্দি কবি, সমাজকর্মী ভারাভারা রাওকে অবশেষে মুম্বইয়ের জে জে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হল। সোমবার মাথা ঘোরা সহ একাধিক উপসর্গ থাকা তেলুগু কবি ও সাহিত্যিকের কিছু মেডিক্যাল টেস্টের জন্য মুম্বইয়ের জে জে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পাশাপাশি, এনআইএ এর বিশেষ আদালত তাঁর জামিনের আবেদন খারিজ করে দেওয়ার প্রেক্ষিতে সোমবার বম্বে হাইকোর্টে আবেদন জানালেন ভারাভারা রাও এর আইনজীবী।
করোনা আবহে হাই রিস্কে থাকা অসুস্থ ভারাভারা রাওয়ের জামিন চেয়ে আদালতে আবেদন জানিয়েছিল তাঁর পরিবার। কিন্তু এনআইএ এর বিশেষ আদালত গত ২৬ জুন তা খারিজ করে দেয়। রাও এর পরিবারের দাবি, বর্তমানে আরও অসুস্থ হয়ে পড়েছেন তিনি। এর মধ্যে রবিবার ইতিহাসবিদ রোমিলা থাপার সহ কয়েকজন বিশিষ্ট ব্যক্তিত্ব মহারাষ্ট্র সরকার এবং এনআইএ’কে চিঠি দিয়ে আবেদন করেছিলেন অসুস্থ ভারাভারা রাওয়ের চিকিৎসার জন্য তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হোক। চিঠিতে তাঁরা লিখেছিলেন, ভারাভারা রাওয়ের জীবন বিপন্ন। পরিবারের আবেদনের প্রেক্ষিতে গত শুক্রবার মহারাষ্ট্র সরকার ও এনআইএ’কে নোটিস দিয়েছিল আদালত। তাতে বলা হয়, ১৭ জুলাইয়ের মধ্যে ভারাভারা রাওয়ের চিকিৎসা সংক্রান্ত ব্যাপারে প্রতিক্রিয়া দিতে হবে। এর মধ্যে সোমবার ফের বম্বে হাইকোর্টে আবেদন জানান ভারাভারা রাও এর আইনজীবী। এরপর তাঁর শারীরিক পরীক্ষা করাতে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় বলে খবর।
জে জে হাসপাতালের চিকিৎসক রঞ্জিত মানকেশ্বর সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, কয়েকটি মেডিক্যাল টেস্টের পর সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে ভারাভারা রাওকে হাসপাতালে ভর্তি করতে হবে কিনা।
২০১৮ সালে ভীমা কোরেগাঁও সংঘর্ষে মদত দেওয়া এবং জড়িত থাকার অভিযোগে মানবাধিকার কর্মী সুধা ভরদ্বাজ, ভার্ণন গঞ্জালেস, অরুন ফেরেরা এবং গৌতম নওলাখার সঙ্গে গ্রেফতার করা হয়েছিল কবি ভারাভারা রাওকে। সেই ২০১৮ সাল থেকেই জেলে বন্দি আছেন ৮১ বছরের এই লেখক। এদিকে করোনা সংক্রমণের হাই রিস্ক ক্যাটেগরিতে রয়েছেন তিনি। গত রবিবার পরিবারের তরফে দাবি করা হয় গুরুতর অসুস্থ ভারাভারা রাওকে অন্তত চিকিৎসা পরিষেবা দেওয়া হোক। তাঁর স্ত্রী অভিযোগ করেন, জেলের মধ্যেই ভারাভারা রাওকে হত্যা করতে চাইছে রাষ্ট্র।
সোমবার ভারাভারা রাওয়ের আইনজীবী হাইকোর্টে আবেদন করেন, হাসপাতালের পরামর্শ সত্ত্বেও তাঁর মেডিক্যাল টেস্ট করাচ্ছে না জেল কর্তৃপক্ষ। আদালতের কাছে আবেদন রাখা হয়, ভারাভারা রাওয়ের মেডিক্যাল পরীক্ষার জন্য জেল কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেওয়া হোক। প্রয়োজনে ভারাভারা রাওকে কোনও বেসরকারি হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হোক। সে খরচ বহন করবে তাঁর পরিবার। এরপরেই তাঁকে জে জে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় বলে খবর।

Comments
Loading...