গোবর থেকে তৈরি মোবাইল ফোনের চিপ বাঁচাবে তেজষ্ক্রিয়তা থেকে, দাবি রাষ্ট্রীয় কামধেনু আয়োগের আধিকারিকের

গোবর দিয়ে তৈরি মোবাইলের চিপ বাঁচাবে তেজস্ক্রিয়তা থেকে! এমনই দাবি করলেন রাষ্ট্রীয় কামধেনু আয়োগের চেয়ারম্যান বল্লভভাই কাথিরিয়া। তাঁর দাবি, ‘গৌসত্তা কবচ’ নামে গোবর দিয়ে তৈরি এই চিপ মোবাইলে ব্যবহার করলে মোবাইল হ্যান্ডসেট থেকে বেরনো রেডিয়েশন উল্লেখযোগ্য হারে কমে যাবে।
গোবর-জাত পণ্যের প্রচারের লক্ষ্যে সোমবার দেশব্যাপী “কামধেনু দীপাবলি অভিযান” এর সূচনা করেছেন বল্লভভাই কাথিরিয়া। সেখানে এই চিপ প্রকাশ করে কথিরিয়া বলেন, দেখুন, এটি একটি রেডিয়েশন চিপ। আপনি এটি আপনার মোবাইলে রাখতে পারেন। আপনি যদি রোগ এড়াতে চান, তাহলে অবশ্যই এটা ব্যবহার করুন।
তাঁর কথায়, মোবাইল ফোনে তেজস্ক্রিয়তা রয়েছে। ফোনে কথা বলার সময় শরীরে তেজস্ক্রিয়তার ক্ষতিকর প্রভাব পড়ে। কিন্তু, গোবরে প্রস্তুত চিপ ফোনে ব্যবহার করলে, সেই তেজস্ক্রিয়তা শরীরের বিশেষ ক্ষতি করতে পারবে না। বরং ক্ষতিকর প্রভাব রুখে দেবে।
সাংবাদিক বৈঠকে গোবর মাহাত্ম্য শুনিয়ে কথিরিয়া বলেন, গোবর আমাদের প্রত্যেককে রক্ষা করে। এটা তেজস্ক্রিয়তা প্রতিরোধী। বিজ্ঞানসম্মত ভাবে তা প্রমাণিত। গোবরে তৈরি পণ্য বাড়িতে রাখলে, তা তেজস্ক্রিয়তার হাত থেকে গোটা বাড়িকে সুরক্ষা দেবে।
রাষ্ট্রীয় কামধেনু আয়োগ হল কেন্দ্রীয় পশুপালন ও গবাদিপশু মন্ত্রকের অধীন একটি সংস্থা। ভারতের গবাদিপশু নিয়ে কাজ করে কেন্দ্রীয় এই সংস্থাটি। গোবরে তৈরি এই মোবাইল চিপের নাম দেওয়া হয়েছে ‘গৌসত্তা কবচ’। চিপটি তৈরি করেছে গুজরাতের রাজকোটের শ্রীজি গৌশালা। সোমবার তাদের তৈরি এই নতুন ধরনের এই চিপটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন বল্লভভাই কাথিরিয়া। সাংবাদিক বৈঠকে অভিনেতা অক্ষয় কুমারের প্রসঙ্গও তোলেন রাষ্ট্রীয় কামধেনু আয়োগের চেয়ারম্যান। অক্ষয় কুমার সম্প্রতি দাবি করেন, গোমূত্রের শারীরিক উপকারিতা রয়েছে। সেই প্রসঙ্গ টেনে বল্লভভাই বলেন, অক্ষয় কুমার নিজেও গোমূত্র পান করেছেন। তাই গোমূত্র ও গোবরের বৈজ্ঞানিক গুণাগুণ তুলে ধরে কাথিরিয়া বলেন, দীপাবলিতে চিনা জিনিস বর্জন করে দেশীয় পণ্য কিনুন এবং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ‘স্বদেশী আন্দোলন’ এ যোগ দিন।

Comments
Loading...