আয়ের উর্দ্ধসীমা উঠে যাওয়ায় কন্যাশ্রী প্রকল্পের আওতায় আসতে চলেছে আরও ৩ লক্ষ ছাত্রী

কন্যাশ্রী সাহায্যপ্রাপ্ত ছাত্রীদের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় গড়তে আগ্রহী রাজ্য। এব্যাপারে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছ থেকে সবুজ সঙ্কেত পাওয়ার পর উদ্যোগ নিতে শুরু করেছে রাজ্য শিক্ষা দফতর। এই মুহূর্তে রাজ্যের ৫০ লক্ষেরও বেশি ছাত্রী কন্যাশ্রী প্রকল্পের আওতাভূক্ত। গত অগাস্ট মাসে এক অনুষ্ঠানে মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা করেছেন, কন্যাশ্রী পাওয়ার জন্য পারিবারিক আয়ের যে উর্দ্ধসীমা ছিল তা তুলে দেওয়া হচ্ছে। এর ফলে আরও ৩ লক্ষ ছাত্রী এই প্রকল্পের আওতায় চলে আসবে। মুখ্যমন্ত্রী জানান, আয়ের উর্দ্ধ সীমা তুলে দেওয়ার জন্য এই প্রকল্পে সরকারের বাড়তি ২০০ কোটি টাকা খরচা হবে।
রাজ্যে নাবালিকা বিয়ে বন্ধ করা এবং মেয়েদের উচ্চ শিক্ষায় উৎসাহ দিতে এই প্রকল্প চালু করেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজ্য সরকারের বক্তব্য, এই প্রকল্পের ফলে একদিকে যেমন মেয়েদের স্কুলছুটের সংখ্যা কমেছে, পাশাপাশি, মেয়েদের বিয়ের গড় বয়েসও অনেকটাই বৃদ্ধি পেয়েছে। নাবালিকা বিয়ে বন্ধে উল্লেখযোগ্য সাফল্যের জন্য ২০১৭ সালে কন্যাশ্রী প্রকল্পকে বিশেষ স্বীকৃতি দিয়েছে রাষ্ট্রসংঘও।
রাজ্য সরকার সূত্রে খবর, এই মুহূর্তে রাজ্যে কন্যাশ্রী প্রকল্পে সাহায্যপ্রাপ্ত ছাত্রীর সংখ্যা ৫০ লক্ষ ২৪ হাজার ৮৭৭। আবেদনকারী ছাত্রীর সংখ্যা ১ কোটি ৩৮ লক্ষ ৬৮ হাজার ১৯৩, যার মধ্যে ১ কোটি ৩৩ লক্ষেরও বেশি আবেদন ইতিমধ্যেই মঞ্জুর করা হয়েছে। সূত্রের খবর, মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণার পরই কন্যাশ্রী ছাত্রীদের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় গড়ার প্রাথমিক পরিকল্পনা নেওয়ার কাজ শুরু হয়েছে।

Comments
Loading...