রাজ্য তো বটেই, রাজস্থান থেকেও লাগাতার খুনের হুমকি-ফোন, চাপের মুখে বাতিল কলকাতা বিফ ফেস্টিভ্যাল

বাতিল হয়ে গেল কলকাতা বিফ ফেস্টিভ্যাল (পরিবর্তিত নাম কলকাতা বিপ* ফেস্টিভ্যাল)। শুক্রবার বেলা ১২ টা নাগাদ অনুষ্ঠানের উদ্যোক্তাদের ফেসবুক পেজে জানানো হয়, ‘পরিস্থিতি আমাদের নিয়ন্ত্রণে নেই। তাই নিরাপত্তার স্বার্থে অনুষ্ঠান বাতিল করা হল’। ঠিক কী কারণে পরিস্থিতি হাতের বাইরে চলে গিয়েছে বলে মনে করছেন উদ্যোক্তারা, ফেসবুক পোস্টে তাও লেখা হয়েছে।

দ্য অ্যাক্সিডেন্টাল নোট জানাচ্ছে, এই বিফ ফেস্টিভ্যালের অন্যতম উদ্যোক্তা অর্জুন করের মোবাইলে তিন শতাধিক ফোন এসেছে। তাতে বারবার অনুষ্ঠানের তীব্র বিরোধিতা করতে গিয়ে খুনের হুমকি পর্যন্ত দেওয়া হয়েছে। অনুষ্ঠান বন্ধ করার হুমকি দেওয়া হয়েছে। শুধু তাই নয়, অর্জুনের দাবি, রাজস্থানের নম্বর থেকে লাগাতার ফোন করে তাঁকে খুন করার হুমকি দেওয়া হচ্ছে। খুনের হুমকি দিয়ে ফোন যাচ্ছে অন্যান্য উদ্যোক্তাদের কাছেও। দ্য অ্যাক্সিডেন্টাল নোটের দাবি, হুমকি ফোন কিংবা হুমকি পোস্টেও দমে না গিয়ে অনুষ্ঠান আয়োজনেই অনড় ছিলেন তাঁরা। কিন্তু তাঁদের আশঙ্কা, অনুষ্ঠানের দিন হাঙ্গামা হবে না তো? এই আশঙ্কাতেই শেষ পর্যন্ত তাঁরা কলকাতা বিফ ফেস্টিভ্যাল (পরিবর্তিত নাম কলকাতা বিপ* ফেস্টিভ্যাল) বাতিল করতে বাধ্য হলেন। এই পরিস্থিতিতে কলকাতা পুলিশের দ্বারস্থ হওয়ার কথা ভাবছেন উদ্যোক্তারা।

গোলমালের সূত্রপাত দ্য অ্যাক্সিডেন্টাল নোট নামে একটি সংগঠনের নিজস্ব ফেসবুক পেজে করা একটি পোস্ট ঘিরে। এই সংগঠন বিভিন্ন ধরনের অনুষ্ঠান আয়োজন করে। সম্প্রতি তারা ফেসবুক পোস্টে ঘোষণা করে, আগামী ২৩ শে জুন দিনভর শহরে একটি খাওয়া দাওয়ার অনুষ্ঠান আয়োজন করা হচ্ছে। সেখানে সারা দিন গরুর মাংসের বিভিন্ন পদের সঙ্গে মিলবে শুয়োরের মাংসেরও বিভিন্ন পদ এবং মাছের পদ। সোশ্যাল মিডিয়ায় মুহূর্তে জনপ্রিয়তা পায় পোস্টটি। চলতে থাকে শেয়ারের পালা। অনুষ্ঠানটির নাম দেওয়া হয় কলকাতা বিফ ফেস্টিভ্যাল।

বিতর্কের সূত্রপাত এই নাম নিয়েই। সোশ্যাল মিডিয়াতেই এই নামের বিরোধিতা করতে শুরু করেন একদল নেটিজেন। এরপর তা গড়ায় হুমকিতে। অশালীন গালিগালাজের পাশাপাশি খুনের হুমকিও দেওয়া হয় বলে অভিযোগ অন্যতম উদ্যোক্তা অর্জুন করের। অনুষ্ঠানস্থলে গিয়ে হাঙ্গামা বাঁধানোরও হুমকি দেওয়া হয় তাঁদের। এরপরই অনুষ্ঠানের নাম বদলের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন উদ্যোক্তারা। চূড়ান্ত রসবোধের পরিচয় দিয়ে অনুষ্ঠানের নাম বদলে করা হয় ‘কলকাতা বিপ* ফেস্টিভ্যাল’। তবুও রেহাই মিলল না। নাম বদলের পরেও আসতে থাকে লাগাতার হুমকি ফোন। চাপের মুখে অবশেষে শুক্রবার অনুষ্ঠান বাতিলের কথা ঘোষণা করলেন উদ্যোক্তারা।

Comments are closed.