কোন ধারায় গ্রেফতার জানিয়ে রাকেশের বাড়িতে নোটিস কলকাতা পুলিশের

ধৃত রাকেশ সিংহকে বুধবার তোলা হবে আদালতে। তাঁর দুই ছেলে শুভম ও সাহেব সিংহ-কেও আদালতে তোলার কথা এদিন। ইতিমধ্যেই এদের স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য এসএসকেএমে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। পামেলা কাণ্ডে মঙ্গলবার রাতেই গলসি থেকে গ্রেফতার হন রাকেশ সিংহ। গ্রেফতার করা হয় রাকেশের সঙ্গী জিতেন্দ্র সিংকেও।

কোন ধারায় গ্রেফতার করা হয়েছে জানিয়ে, বুধবার সকালে রাকেশের বাড়িতে একটি নোটিস পাঠায় পুলিশ। দক্ষিণ কলকাতার বাড়িতে পুলিশি অভিযানে বাধা দেওয়ার অভিযোগে গ্রেফতার হয় রাকেশের দুই ছেলে শুভম ও সাহেব সিংহ। পুলিশ সূত্রের খবর, গাড়ি নিয়ে ভুবনেশ্বর যাচ্ছিলেন রাকেশ। গলসির কাছে নাকা চেকিং করার সময় গ্রেফতার করা হয় তাঁকে। রাতেই কলকাতা থেকে গুন্ডাদমন শাখার আধিকারিকরা গলসি থেকে তাঁকে কলকাতায় নিয়ে আসেন।

[আরও পড়ুন- মনোজ TMC প্রার্থী, দিন্দা কোথায়? বঙ্গ ভোটে প্রার্থী নিয়ে চমক সব দলেই]

মঙ্গলবার দক্ষিণ কলকাতায় রাকেশের বাড়িতে তল্লাশি অভিযানে যায় পুলিশ। পুলিশকে বাধা দেয় রাকেশের দুই ছেলে শুভম এবং সাহেব। তাঁদেরকে আটক করে লালবাজারে নিয়ে যাওয়া হয়। এদিন রাতেই গ্রেফতার হয় শুভম এবং সাহেব। মাদক যোগে বিজেপির যুব মোর্চার সম্পাদক পামেলা গোস্বামী গ্রেফতার হন। আলিপুর আদালতে ঢোকার আগে তিনি সাংবাদিকদের জানান, কৈলাস বিজয়বর্গীয় ঘনিষ্ঠ রাকেশ সিংহ-এর কথা। পামেলার অভিযোগ ছিল, রাকেশই মাদক মামলায় ফাঁসিয়েছেন তাঁকে। কলকাতা পুলিশের বিরুদ্ধে পাল্টা অভিযোগ আনেন রাকেশ। কলকাতা পুলিশই পামেলাকে তাঁর নাম বলতে বাধ্য করছেন বলে অভিযোগ করেন রাকেশ। মাদক মামলায় তাঁর নাম জড়ানো হলে কলকাতা পুলিশের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ করার হুমকি দেন রাকেশ।

মঙ্গলবার বিকেলে লালবাজারে তলব করা হয় রাকেশকে। কিন্তু দিল্লিতে কাজের জন্য যেতে পারবেন না তিনি বলে জানিয়ে পুলিশকে পাল্টা চিঠি দেন। পুলিশ যাতে কোনও পদক্ষেপ নিতে না পারে কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন তিনি। কিন্তু সেখানে রাকেশের আবেদন খারিজ হয়ে যায়। আদালত জানিয়ে দেয়,এ বিষয়ে কোনও স্থগিতাদেশ দেওয়া যাবে না। উড়ান পথে না গিয়ে সড়ক পথে ভুবনেশ্বর পালিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা করেছিলেন রাকেশ। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে নাকা তল্লাশিতে পূর্ব বর্ধমানের গলসি থেকে গ্রেফতার হন তিনি।

Comments
Loading...